প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হওয়ার আগে যা করছিলেন এই পরিবার!

২১ এপ্রিল ২০১৯ , ০৭:৫৫:০০

ছবি: ইন্টারনেট

শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ সিরিজ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০৭ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন ৪৫০ জন। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

রোববার (২১ এপ্রিল) স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ৬টি গির্জা ও শহরের প্রধান দু’টি হোটেলকে লক্ষ্য করে ইস্টার সানডে’র অনুষ্ঠান চলার মধ্যে এসব বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। তবে কে বা কোন জঙ্গি গোষ্ঠী এই বিস্ফোরণ ঘটায় তা এখনো জানা যায়নি।

এদিকে কলম্বোতে সন্ত্রাসী হামলায় প্রথম দফায় নিহতদের মধ্যে ছিলেন এক টিভি শেফ এবং তার মেয়ে। শান্তা মায়াদুনে নামের ওই টিভি শেফ ও তার পরিবার কলম্বোর শাংরি-লা হোটেলে অবস্থান করছিলেন। হামলায় আক্রান্ত তিনিটি হোটেলের একটি হোটেল শাংরি-লা।

শান্তার মেয়ে নিসাঙ্গা হামলার কিছুক্ষণ আগে ফেসবুকে এই ছবিটি পোস্ট করেন। ছবিটির ক্যাপশন ছিলো, ‘আমার পরিবারের সঙ্গে ইস্টার নাস্তা’। ছবিটিতে খুবই হাস্যোজ্বল দেখাচ্ছিলো তাদের। ছবি দেখে কে বলতে পারবে যে, কিছুক্ষণ পরই তাদেরকে বর্বর সন্ত্রাসী হামলায় জীবন হারাতে হবে।

নিসাঙ্গার ফেসবুক পেজ অনুসন্ধান করে জানা যায় তিনি লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা করেছেন।

রাধা ফনসেকা নামে দুবাইতে বসবাসকারী এক শ্রীলঙ্কান জানান, ‘সন্ত্রাসী হামলায় নিসাঙ্গার মৃত্যুর খবর শুনে আমি হতবাক হয়ে গেছি। আমি কিছু বলতে পারছিলাম না।’

‘নিসাঙ্গা কলেজে খুবই বিখ্যাত ছাত্রী ছিলো। সে খুবই মেধাবী এবং স্মার্ট ছিলো। তার মা শান্তা মায়াদুনে ছিলেন বিখ্যাত শেফ। তার মায়ের খ্যাতি তাকে আরো বিখ্যাত করেছিলো। তার মা শ্রীলঙ্কায় খুবই সম্মানিত এবং অনুপ্রেরণাদায়ক একজন রাধুনি।’

তার মা শান্তার একটি বিখ্যাত রান্না বিষয়ক বিদ্যালয় আছে। শান্তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির নাম শান্তা মায়াদুনে স্কুল অফ কুকিং আর্ট।

রবিবার দুপুর ৩টা পর্যন্ত আটটি বিস্ফোরণ ঘটেছে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো-সহ সংলগ্ন এলাকায়। রবিবার সকালে রাজধানী কলম্বোর তিনটি হোটেল ও তিনটি গির্জা ধারাবাহিক বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে। এরপর আরো দুটি বিস্ফোরণ ঘটে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোতে।

ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ২০৭ জনের নিহত হওয়ার খবর মিলেছে। আহত হয়েছেন প্রায় ৫০০ জন। হামলার পর দেশ জুড়ে সন্ধ্যা ৬টা থেকে সোমবার সকাল ৬টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করা হয়েছে।

এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কান কর্তৃপক্ষ।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: