অমিত শাহ বললেন বাংলাদেশি হলেই নাগরিকত্ব!

প্রকাশিত: ০৮:২০ পূর্বাহ্ণ, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) জাতীয় সভাপতি অমিত শাহ সোমবার বলেছেন, যারা বাংলাদেশ থেকে অভিবাসী হয়ে উদ্বাস্তু হয়েছেন এবং তাদের পরিচয় যাই হোক, তারা ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবেন।

এ প্রসঙ্গে মি. অমিত লক্ষণীয়ভাবে বলেন, ‘হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন বা খ্রিষ্টান, তার পরিচয় যাই হোক তিনি বা তারা বিজেপি’র ‘সংকল্প পত্র’ অনুযায়ী প্রতিশ্রুত নাগরিকত্ব পাবেন। গতকাল বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড এ খবর দিয়েছে। এর আগে বিজেপি নেতারা বিশেষ করে আসামের নেতারা বলে আসছেন, শুধু বাংলাদেশি হিন্দুরা নাগরিকত্ব পাবেন। এখন তারা সামপ্রদায়িকতার সমালোচনার মুখে কথাটি একটু ঘুরিয়ে বলছেন।

কলকাতায় একটি সংবাদ সম্মেলনে দেয়া ভাষণে অমিত শাহ বলেন, বিজেপি ঘোষণা করেছে যে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে তার শূন্য সহনশীলতা থাকবে। এ ছাড়াও, আমরা সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল এবং এনআরসি সম্পর্কে বিজেপির ঘোষণাপত্রে আমাদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছি।

তিনি বলেন, ‘আমি বাংলার জনগণকে ভয়ভীতি ছাড়াই ভোট দিতে অনুরোধ করছি, বিজেপি কর্মীরা লোকসভা ভোটে গণতন্ত্রের রক্ষাকর্তা হিসেবে বিজেপিকে রক্ষা করে চলছে।’

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে লক্ষ্য করে মি. শাহ বলেছেন, ‘দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্বাচনের শেষে মমতা ব্যানার্জি চাপে রয়েছেন। বাংলায় তোষণের রাজনীতি চলছে।’

তিনি বলেন, ‘মমতা ব্যানার্জি বাংলায় আমাকে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়নি, এখন এখানে লোকেরা তার সমাবেশে যোগ দিতে আসছেন না।’

ভোপাল থেকে বিজেপির প্রার্থী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি অন্তত সাধবী প্রজ্ঞার বিষয়ে বলতে চাই যে, মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। যাতে হিন্দু সন্ত্রাসী দেখানো হয়েছে। অথচ আদালতে মামলাটি মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের প্রশংসা করে অমিত শাহ বলেন, ‘কেন্দ্রের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন সরকারের অধীনে আমরা এই জেলায় ১০ হাজার দরিদ্রকে সহায়তা দিয়েছি। এ ছাড়া আরো ৩০০০ শহুরে গরিব পরিবার সহায়তা পেয়েছে। বিজেপি ৭ কোটি ঘরে গ্যাস সংযোগ দিয়েছে, ৮ কোটি ঘর টয়লেট পেয়েছে এবং ৫০ কোটি গরিব আয়ুষ্মান ভারত স্কিমের অধীনে পাঁচ লাখ টাকার বিমা পাবে। সূত্র: মানবজমিন।

বিডি২৪লাইভ/টিএএফ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: