প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

১২১ বছরেও মেলেনি বয়স্ক ভাতা!

২৫ এপ্রিল ২০১৯ , ০৯:০৭:০০

ছবি: প্রতিনিধি

বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছেন হাতেম আলী। স্থানীয়দের ধারণা ইউনিয়নের সর্বোচ্চ বয়স্ক ব্যক্তি তিনি। ওই বৃদ্ধের দাবি তাঁর বয়স ১২১ বছর চলছে। লাঠিতে ভর দিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটেন। শরীরে আগের মতো শক্তি নেই। কাজ করার মতো বল পান না তিনি। বাড়ি থেকে মসজিদ। আর ভালো লাগলে বাড়ির সামনে নাতি-নাতনিদের সঙ্গ দেওয়া। বয়সটা যেন পরনির্ভরশীলতায় পৌঁছে দিয়েছে।

সরকারি নির্দেশনায় বয়স্ক ভাতা পেতে সর্বনিন্ম ৬৫ বছর বয়সসীমা ধরা হলেও অজ্ঞাত কারণে দ্বিগুন বয়সেও বয়স্ক ভাতা পচ্ছেন না ওই বৃদ্ধ।

হাতেম আলী টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার পাথরাইল ইউনিয়নের চিনাখোলা গ্রামের মৃত নছের মন্ডল ও মৃত ময়রী বেগমের সন্তান। তার ঘরেও রয়েছে ৬ মেয়ে ও ৫ ছেলে। এ বয়সেও তিনি মসজিদে নামাজ আদায় করেন ও আযান দেন। বৃদ্ধ বয়সে তার আক্ষেপ এখনও তিনি বয়স্ক ভাতা পাননি। প্রথমে দীর্ঘদিন তিনি চৌকিদারের (গ্রাম পুলিশ) পেছনে ঘুরেছেন ভাতার জন্য। জানতে পারেন চৌকিদারের এ দায়িত্ব না। পাথরাইল ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার), চেয়ারম্যানের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করেও কোন লাভ হয়নি। তার প্রশ্ন ‘আর কত বয়স হলে আমি বয়স্ক ভাতা পাব’।

জানা যায়, জাতীয় পরিচয় পত্রে তার জন্ম সাল (১৯১৩) অনুযায়ী তার বর্তমান বয়স ১০৬ বছর।

স্থানীয় শত বছরের একাধিক বৃদ্ধ জানিয়েছেন, তার বয়স আরও অনেক বেশি হবে। তবে হাতেম আলীর দাবি তাঁর বয়স ১২১ বছর। এলাকার এই বয়োজ্যেষ্ঠ হাতেম আলী বয়স্ক ভাতা না পাওয়ায় সমালোচনায় পড়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

বয়স্ক ভাতা কর্মসূচি বাস্তবায়ন নীতিমালায় উল্লেখ রয়েছে, (১) সংশ্লিষ্ট এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। (২) জন্ম নিবন্ধন/জাতীয় পরিচিতি নম্বর থাকতে হবে। (৩) বয়স পুরুষের ক্ষেত্রে সর্বন‌ম্নি ৬৫ বছর এবং মহিলাদের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ৬২ বছর হতে হবে। (৪) প্রার্থীর বার্ষিক গড় আয় অনূর্ধ্ব ১০,০০০ (দশ হাজার) টাকা হতে হবে। (৫) বাছাই কমিটি কর্তৃক নির্বাচিত হতে হবে।

ভাতা প্রাপ্তির সবগুলো যোগ্যতা থাকার পরও কেন বয়স্ক ভাতা পাচ্ছেন না এমন প্রশ্ন হাতেম আলীসহ তার স্বজনদের।

হাতেম আলী জানান, আমি কয়েকবার স্থানীয় ইউপি সদস্যের কাছে বয়স্ক ভাতার জন্য অনুরোধ করেছি। সাবেক ইউপি সদস্যের কাছেও অনুরোধ করেছি। কেও আমাকে বয়স্ক ভাতার কার্ড দেননি।

নির্বাচনের আগে প্রার্থীরা তাকে কার্ড দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও নির্বাচনের পর আর কোন খোঁজ নেননি নির্বাচিত প্রতিনিধিরা। বয়স্ক ভাতা নাগরিক অধিকার। শেষ বয়সে তিনি সেই নাগরিক অধিকার পেতে সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মীর আনিছুর রহমান জানান, হাতেম আলীর জাতীয় পরিচয় পত্রে একটু সমস্যা ছিল। এজন্য তাঁর কার্ড হয়নি। তবে উপজেলা সমাজ সেবা অফিসারের সাথে কথা বলে দ্রুত বয়স্ক ভাতার কার্ডের ব্যবস্থার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

পাথরাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হানিফুজ্জামান লিটন বলেন, সম্প্রতি একটি তালিকা অনুমোদন হয়েছে। আগে জানলে এই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা যেত। আগামী জুন মাসে নতুন তালিকা হবে। তখন অবশ্যই হাতেম আলীর নাম বয়স্ক ভাতার আওতায় আনা হবে।

দেলদুয়ার উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মোবারক হোসেন বলেন, এখনও এ রকম বয়স্ক লোক বয়স্ক ভাতার আওতায় পড়েনি আমার জানা ছিল না। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে হাতেম আলীর বয়স্ক ভাতার কার্ড দেওয়ার আশ্বাস দেন সমাজ সেবার এই কর্মকর্তা।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: