কারফিউ জারি

শ্রীলঙ্কায় মসজিদ ও মুসলিমদের ওপর পাথর নিক্ষেপ, নিহত ১

১৪ মে, ২০১৯ ১১:১২:১৯

ছবি: ইন্টারনেট

ফেসবুকে শুরু হওয়া বিতর্কের জেরে শ্রীলঙ্কার পশ্চিম উপকূলীয় শহর চিলাওতে মসজিদে ও মুসলমানদের দোকানপাটে এলোপাতিাড়ি পাথর ছোড়ার ঘটনায় ১ জন নিহত হয়েছেন। মুসলিম বিরোধী সহিংসতা বৃদ্ধি পাওয়ায় শ্রীলঙ্কায় দেশব্যাপী রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করা হয়েছে।

কয়েকদিন আগে ইস্টার সানডে'তে শ্রীলঙ্কার কয়েকটি গির্জা ও অভিজাত হোটেলে একযোগে ইসলামপন্থী জঙ্গীদের হামলার ঘটনায় ২৫০ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়। হামলার পর থেকেই দেশটিতে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এক প্রতিবেদনে রয়টার্স জানিয়েছে, মসজিদের ভবনের তল্লাশির দাবি জানিয়ে জনতা সেখানেও পুলিশী অভিযানের দাবি উঠালে তারই এক পর্যায়ে হামলার ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনার আগে মসজিদের নিকটস্থ একটি জলাশয়ে অস্ত্র আছে কিনা সেই বিষয়ে অনুসন্ধান করতে অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

পুলিশ জানিয়েছে, ফেসবুকে এক ব্যক্তির দেওয়া বিতর্কিত একটি পোস্টের পর খ্রিস্টান-প্রধান শহর চিলৌ-তে মুসলিমদের কিছু দোকান ও মসজিদে আক্রমণের ঘটনা ঘটে।

পরবর্তীতে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া ৩৮ বছর বয়সী সেই মুসলিম ব্যবসায়ীকে খুঁজে বের করে গ্রেফতার করা হয়।

দেশটির উত্তর-পশ্চিমের পুত্তালাম জেলায় এক ব্যবসায়ীর দোকানে ক্রুদ্ধ জনগণ আক্রমণ করার পর ছুরিকাঘাতে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। হেট্টিপোলা শহরেও তিনটি দোকানে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

তবে, দাঙ্গা-হাঙ্গামা আরও ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপসহ আরো কিছু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শ্রীলঙ্কার ২ কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার সিংহভাগই বৌদ্ধ ধর্মের অনুসারী। সেখান প্রায় ১০ শতাংশ মানুষ মুসলিম।

নিরাপত্তার কারণে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মুসলমান বলেন, পরবর্তীতে লোকজন তিনটি মসজিদে ও মুসলমানদের মালিকানার দোকানপাটে পাথর ছুড়ে মেরেছেন। পরিস্থিতি এখন শান্ত হলেও রাতে আমরা আতঙ্ক নিয়ে আছি।

তিনি বলেন, একটি মসজিদে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, কয়েক ডজন লোকজন চিৎকার চেঁচামেচি করে নিউ হাসমারস নামের একটি কাপড়ের দোকানে পাথর নিক্ষেপ করছেন।

ইস্টার সানডেতে হামলায় নিগম্বোতে শতাধিক লোক নিহত হন। গত সপ্তাহে চলাচল বিতর্ক নিয়ে সেখানে খ্রিষ্টান ও মুসলমানদের মধ্যে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছিল।

বিডি২৪লাইভ/এসএএস

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: