যে কারণে বিএনপির সঙ্গ ছাড়লেন পার্থ, জানালেন নিজেই 

১৪ মে ২০১৯ , ০৫:৫৫:৪২

ফাইল ফটো

সংসদে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার মাধ্যমে বিএনপি ২০১৮ সালের ৩০ শে ডিসেম্বরের নির্বাচনকে নিয়ে প্রশ্ন করার নৈতিক অধিকার হারিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সদ্য ২০ দলীয় জোট ত্যাগ করা বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিভ রহমান পার্থ। মূলত এ কারণেই তিনি বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ত্যাগ করেছেন বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।  

সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সরাসরি টক-শো অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

তিনি বলেন, সংসদে যাওয়াটা জাতীয় ইস্যু। বাংলাদেশে ৩০ শে ডিসেম্বর প্রহসন এবং ভোট ডাকাতির নির্বাচন হয়েছে। এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার পরেও সবাই এ নির্বাচনকে প্রত্যাখ্যান করেছে। ১২০ দিন যাবত এই নির্বাচনকে প্রশ্ন করার পরে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের হঠাৎ ১২১ দিনের মাথায় কেন সংসদে যাওয়ার উপলব্ধি হয়? এবং কেন উপলব্ধি হয় সংসদে আগে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত ভুল ছিল? 

পার্থ বলেন, এটা একটা ন্যাশনাল ইস্যু। জনগণের কথা তো কাউকে না কাউকে বলতেই হবে। ৩০শে ডিসেম্বর যে নির্বাচন হয়েছে, বাংলাদেশের সবাই জানে এই নির্বাচনে কি হয়েছে। এই নির্বাচনটা যে বৈধ না, এই কথাটা বলার জন্য কারও তো এ নৈতিক অধিকার অক্ষুন্ন রাখতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, এই নির্বাচনে জনগণের ইচ্ছাই প্রতিফলন হয়নি। আমি মনে করি এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার সাথে সাথে (সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত) বিএনপি এবং ১৯ দলীয় জোটে এখন যারা আছে তারা অনেকাংশেই এই নির্বাচনকে নিয়ে প্রশ্ন করার নৈতিক অধিকার হারিয়েছে। তবে এটা (নির্বাচনকে নিয়ে প্রশ্ন করার নৈতিক অধিকার) আমি অক্ষুন্ন রাখতে চাই।

বিডি২৪লাইভ/এসএইচআর/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: