প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

খালেদা জিয়ার নতুন ঠিকানা কেরানীগঞ্জ কারাগার

১৫ মে, ২০১৯ ১৬:২০:৫১

ছবি: ইন্টারনেট থেকে নেয়া।

দুর্নীতির দায়ে কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নতুন ঠিকানা হচ্ছে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগার। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) থেকে তাকে ছেড়ে দিলে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেয়া হবে বলে নিশ্চিত করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

মঙ্গলবার (১৪ মে) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো এবং তিনি রোজা রাখছেন। একই সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) থেকে তাকে ছেড়ে দিলে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেয়া হবে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘উনি (খালেদা জিয়া) রোজা রাখছেন, আমি যতটুকু জানি বস্নাড প্রেসার, ডায়াবেটিসের ওষুধ নিচ্ছেন, ইনসুলিন নিচ্ছেন।’

তিনি আরও বলেন, আগে ইনসুলিন নিতেন না, সে জন্য ডায়াবেটিস কন্ট্রোলে ছিল না। এখন উনি (খালেদা জিয়া) ইনসুলিন নিচ্ছেন, এখন ওনার শরীর মোটামুটি ভালো আছে, আমরা যেটুকু খবর পেয়েছি। আমরা খবর পেয়েছি উনি আগের চেয়ে অনেক সুস্থ।

কেরানীগঞ্জে বিশেষ আদালত স্থানান্তরিত হয়েছে, খালেদা জিয়া সুস্থ হলে তাকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেয়া হবে কি না -এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারকে আদালতে রূপান্তর করে সেখানে খালেদা জিয়াকে রেখেছিলাম। আমরা সেটাকে জাদুঘরে পরিণত করছি, প্রোগ্রাম নিয়ে নিয়েছি। অনেক অংশই ভেঙে ফেলা হবে। কাজেই ওনাকে আর ওখানে রাখা যাবে না। কেরানীগঞ্জে একটি আধুনিক কারাগার তৈরি করেছি। সেখানে মহিলাদের অংশটা করতে একটু সময় লেগেছিল। অন্যান্য কাজও বাকি ছিল। সেগুলো করতে একটু সময় লেগেছে। খালেদা জিয়াকে যদি হাসপাতাল থেকে ডিসচার্জ করা হয় তাহলে হয়তো তাকে ওখানে নেয়া হবে।’

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘যে ধরনের রোগে তিনি ভুগছেন, সেগুলো অনেক দিনের পুরনো রোগ। যেমন- আর্থাইটিস ও ডায়াবেটিস। সেগুলো তার পুরনো রোগ, সেগুলো তো চলছেই। সেগুলো চলছে বলেই তিনি হাসপাতালে আছেন।’

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় গ্যাটকো দুর্নীতির মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি আবার পিছিয়ে ১৮ জুন নতুন তারিখ রেখেছে আদালত।

কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে নবনির্মিত দুই নম্বর ভবনে স্থাপিত অস্থায়ী এজলাসে বসে মঙ্গলবার ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ সৈয়দ দিলজার হোসেন এই নতুন দিন ঠিক করে দেন।

খালেদার আইনজীবী জিয়াউদ্দিন জিয়া বলেন, গতকাল এ মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ছিল। তবে খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন থাকায় তাকে আদালতে উপস্থিত করা হয়নি। এজন্য বিচারক মামলার শুনানি মুলতবি রেখে নতুন করে দিন ধার্য করেছেন।

বিডি২৪লাইভ/এএস

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: