প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

তাসকিনের বিশ্বকাপ শেষ!

১৬ মে ২০১৯ , ০৯:৩৪:৪৯

ছবি: ইন্টারনেট

তাসকিন আহমেদের ফিটনেসে ঘাটতি থাকায় বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পেয়েছিলেন আবু জায়েদ রাহী। ত্রিদেশীয় সিরিজের মাঝপথে রাহীকে বাদ দিয়ে তাসকিনকে দলভুক্ত করার গুঞ্জন উঠেছিল। তবে সামগ্রিক গতিপ্রকৃতি বলছে, ইনজুরির দুর্ভাগ্য ছাড়া আগামী এক সপ্তাহে বাংলাদেশ দলে পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। আর তাতেই স্পষ্ট আপাতত মাটিচাপা পড়ছে তাসকিন আহমেদের বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন! 

আয়ারল্যান্ডে শুরু থেকে দলের অনুশীলনে ব্রাত্য হয়ে থাকা রাহীর অভিষেক হয় গত ১৩ মে। অভিষেকে ৫৬ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন ডানহাতি এই পেসার। তারপরও তার প্রতি আস্থা রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। যার প্রতিদানও দিয়েছেন তিনি। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচেই বল হাতে জ্বলে উঠলেন রাহী। প্রথমবার পাঁচ উইকেট নিয়েছেন তিনি। আজ ডাবলিনে ৫৮ রানে ৫ উইকেট নিয়ে ম্যাচে বাংলাদেশের সেরা বোলার রাহী।

অন্যদিকে প্রস্তুতি ম্যাচে তিন উইকেট পেলেও বাংলাদেশের একাদশে সুযোগ পাচ্ছেন না তাসকিন। বুধবার সিরিজের প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচে ডাবলিনে রাহীর বোলিংয়ে তাসকিনের বিশ্বকাপ স্বপ্ন কার্যত শেষ হয়ে গেল।

গতকাল নির্বাচক কমিটির সূত্রও জানিয়েছে, বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলে কোনো পরিবর্তন হবে না। ১৫ জন নিয়েই বিশ্বকাপে যাবে বাংলাদেশ।

আবু জায়েদ রাহীর জায়গায় বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দলে না থাকা তাসকিনকে নেয়ার আলোচনায় বেশ সরগরম হয়ে উঠেছিল দেশের ক্রিকেটাঙ্গন। ত্রিদেশীয় সিরিজের মাঝপথেই বিশ্বকাপ দল থেকে রাহীর বাদ পড়া, তাসকিনের দলে আসার গুঞ্জন ডালপালা গজিয়েছিল। গতিময় পেসার, ভালো বাউন্সার দিতে পারেন বিবেচনায় টিম ম্যানেজমেন্ট নাকি তাসকিনকে দলে চেয়েছিল। গত শনিবার এমনই বলেছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি আরও বলেছিলেন, বিশ্বকাপ দলে পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা হবে।

তাসকিন ফিট না থাকায় বিশ্বকাপ দলে নেয়া হয়েছিল রাহীকে। আর ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে রাখা হয় তাসকিনকে। আয়ারল্যান্ডে প্রস্তুতি ম্যাচে বোলিং দেখার পর দ্রুত গতির এই ফাস্ট বোলারের প্রতি ঝুঁকে পড়েছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। গণমাধ্যমে সেই তথ্য প্রকাশ হতেই চরম সমালোচনার মুখে পড়ে বিসিবি ও নির্বাচকরা।

তারপরই বদলে যেতে থাকে দৃশ্যপট। সমালোচনার ভয়ে কয়েকদিন আগেও পরিকল্পনার বাইরে থাকা রাহীকে নিয়ে হঠাত্ই কাজ শুরু করেন কোচিং স্টাফের সদস্যরা। রাহীর প্রতি আস্থা রাখা ও তাকে পূর্ণ সমর্থন দেয়ার চিন্তায় দৃঢ় অবস্থান নেয় টিম ম্যানেজমেন্ট। যার কারণেই ত্রিদেশীয় সিরিজে পরপর দুই ম্যাচে একাদশে রাখা হলো রাহীকে। গত সোমবার অভিষেকে ভালো করতে পারেননি তিনি। ৫৬ রান দিয়ে উইকেট শূন্য ছিলেন। তারপরও দল আস্থা রেখেছে রাহীর উপর। গতকাল আরেকবার সুযোগ দেয়া হয়েছে ডানহাতি এই পেসারকে। এদিন বল হাতে অনেক শৃঙ্খলিত দেখা গেছে রাহীকে। নতুন বলে সুইং করানোর দক্ষতাও দেখিয়েছেন।

রাহীকে টিম ম্যানেজমেন্টের সমর্থন, ত্রিদেশীয় সিরিজে তাসকিনের ম্যাচ না পাওয়া অনেক বার্তা বহন করে। আগামীকাল ফাইনালে বাংলাদেশ দল থাকবে ট্রফি জয়ের নেশায়। সেখানে মূল দলটাই খেলানো হবে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পথে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। সেক্ষেত্রে আয়ারল্যান্ডে তাসকিন আর ম্যাচ পাচ্ছেন না ধরে নেয়া যায়। এবং বলাই যায় এবার তাসকিনের বিশ্বকাপ খেলা হচ্ছে না!

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম পর্বে কোনো ম্যাচেই একাদশে ঠাঁই হয়নি তার। সুযোগ ছিল গতকাল স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে তাকে খেলানোর। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সাইড বেঞ্চেই থাকতে হয়েছে তাসকিনকে। যার ফলে তার ফিটনেস যেমন দেখা হলো না, তেমনি বোলিংয়ে নিজেকে দেখানোর সুযোগও পেলেন না তিনি।

আগামী ২২ মে পর্যন্ত কোনো কারণ ছাড়াই বিশ্বকাপ দলে পরিবর্তন করা যাবে। পরিস্থিতি বলছে, আইসিসির দেয়া সুযোগটা বাংলাদেশ হয়তো নিবে না। সেক্ষেত্রে পেসারদের কেউ ইনজুরির দুর্ভাগ্যে না পড়লে তাসকিনের বিশ্বকাপ খেলা হচ্ছে না। তাছাড়া মিরপুর স্টেডিয়ামে চলমান এলিট প্লেয়ার্স স্কিল ক্যাম্পেও রাখা হয়েছে তাসকিনকে। ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে এই ক্যাম্পে যোগ দিতে বলা হয়েছে তাকে।

বিডি২৪লাইভ/এসএএস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: