প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

সেই টাইগার ভক্তের এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকার

১৮ মে ২০১৯ , ০৩:১৯:০৭

ছবি: নিজস্ব

দেশ কিংবা দেশের বাহিরে টাইগারদের শক্তি যোগাতে মাঠের গ্যালারি মাতিয়ে রাখেন বাংলাদেশের আইকন ক্রিকেট দর্শক শোয়েব আলী। তিনি পেশায় একজন মেকানিক্যাল মিস্ত্রি হলেও দেশের ক্রিকেটকে ভালোবাসেন নিজের জীবনের চেয়েও বেশী। ২ ভাই আর এক বোনের মধ্যে শোয়েব সবার ছোট। এই ক্রিকেট প্রেমীর ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে যাওয়া এখনও প্রায় অনশ্চিত। তবে এই ক্রিকেট পাগল প্রতিনিয়ত স্বপ্ন দেখে যাচ্ছেন একদিন বিশ্বকাপ জিতবে টিম-বাংলাদেশ। সম্প্রতি দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল বিডি২৪লাইভের সাথে একান্তে কথা বলেছেন শোয়েব আলী। তার সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন মো. ইমরান হোসেন।  

বিডি২৪লাইভ: ব্যক্তিগত জীবনে আপনি কি করেন?
শোয়েব আলী: আমি আমার বেশিরভাগ সময় খেলা দেখার পিছনে ব্যয় করি। তাছাড়া আমি একটু ছোটখাটো একটা ব্যবসা করি। আমার গাড়ির একটা গ্যারেজ আছে।

বিডি২৪লাইভ: আপনি তো বাংলাদেশ ক্রিকেটের আইকন দর্শক। বাংলাদেশ ক্রিকেটকে সাপোর্টা করতে গিয়ে আপনার কর্মক্ষেত্রে কোন প্রভাব পরছে কিনা?
শোয়েব আলী: দেখেন আমার যেসব ফ্রেন্ড সার্কেল আছে কর্মক্ষেত্রে ওরা সবাই ভালো একটা অবস্থানে চলে গেছে। কেউ ঢাকাতে জমি রেখেছে, কেউবা ফ্ল্যাট কিনছে। আমার কিছু বন্ধুরা তিন-চারটা গাড়ি কিনে ভাড়া দিয়ে দিয়েছে। সেখান থেকে তারা ভাড়া পাচ্ছে। সেই হিসেবে আমি আসলে কিছুই করতে পারিনি। খেলাধূলার জন্য ধরতে গেলে আমি একদম জিরো। 

বিডি২৪লাইভ: দেশের বাইরে গেলে প্রতিপক্ষের দর্শক অনেক বেশি থাকে। তারা আসলে আপনাকে কিভাবে দেখে? 
শোয়েব আলী: আসলে প্রতিপক্ষরা খুব ভালো ভাবেই দেখে। অন্য দলের প্রতিপক্ষ মাঠে যখন ২০ থেকে ৩০ জন থাকে তখন আমার কাছে কিছুই মনে হয় না কারণ আমি একা যেভাবে স্লোগান দেই বা চিৎকার দেই আসলে আমার সাথে ওরা পারে না। একবার শ্রীলঙ্কাতে একটা ঘটনা হয়েছিল ৫০ জন ছেলে মিলে বলতেছিল শ্রীলঙ্কা শ্রীলঙ্কা কিন্তু তখন আমি একাই বলতেছিলাম বাংলাদেশ বাংলাদেশ এরপর ওরা কিছুক্ষণ পর হয়রান হয়ে যায় কিন্তু আমি হয়রান হয়েও তাদের কাছে হার মানি নি। এরপর মাহেলা এসে ওদের বলতেছে ও পারলে তোমরা পারবা না কেন? এভাবে ওরা প্রতিপক্ষ হিসাবে দেখলে তখন আসলে খুব ভালোই লাগে। যখন ইন্ডিয়া খেলা দেখতে গেছিলাম তখন গ্যালারিতে আমি একাই বাঙালি ছিলাম। ইন্ডিয়ার সবাই বলতেছিল ইন্ডিয়া ইন্ডিয়া তখন আমি একাই বলতেছিলাম বাংলাদেশ বাংলাদেশ মনে আমি একাই গ্যালারি মাতিয়ে রেখেছি। তবে একটি বিষয় হলো কি? আমাদের অনেকে ছোট হিসেবে দেখে ঐ রকম মর্যাদা করে না আবার অনেকেই মর্যাদার করে।

বিডি২৪লাইভ: বাংলাদেশি প্রবাসীদের কাছ থেকে দেশের বাহিরে কেমন সাড়া পান?
শোয়েব আলী: লাস্ট টাইম যখন দুবাইতে খেলা হইল তখন তো দুবাইতে গিয়েছিলাম আমি। তখন দেখলাম বাংলাদেশের প্রবাসীরা কতটা আন্তরিক কতটা খেলা পাগল। এক লোক আমাকে এসে বলতেছে ভাই সাড়ারাত কাজ করছি বাংলাদেশের খেলা দেখার জন্য এই কথাগুলো শুনে চোখের পানি ধরে রাখা যায় না। 

বিডি২৪লাইভ: বিশ্বকাপ খেলা দেখতে ইংল্যান্ড যাচ্ছেন কি? 
শোয়েব আলী: আল্লাহর কাছে দোয়া করি যেন ভিসাটা পেয়ে যাই। এখনও কিছু হয়নি। আমার স্বপ্ন গ্যালারিতে বসে টাইগারদের সমর্থন করা। দোয়া করবেন আমি যেন যেতে পারি আর এবারের বিশ্বকাপ যেন টাইগাররা জিততে পারে।

বিডি২৪লাইভ/আইএইচ/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: