প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

ইরানকে ঠেকাতে হঠাৎ সৌদির সমুদ্রসীমায় মার্কিন সেনা

প্রকাশিত: ০৬:০৫ অপরাহ্ণ, ১৮ মে ২০১৯

ছবি: ইন্টারনেট

মধ্যপ্রচ্যের কয়েকটি দেশে সম্প্রতি বিশৃঙ্খলা দেখা দিয়েছে। ইরান-যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনা এখন মহা চরমে। বিশ্বের অনেকেই আশঙ্কা করছেন যেকোন সময় যুদ্ধে লিপ্ত হতে পারে এই দুটি দেশ। ইরান যুদ্ধের সঙ্কেত দিলেও বিষয়টি এড়িয়ে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

ট্রাম্প বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার কথা বললেও তিনি ইরানের সম্ভাব্য হামলা ঠেকাতে সমুদ্রসীমায় সৌদি আরবসহ কয়েকটি দেশ মার্কিন সেনা মোতায়েন ও সামরিক স্থাপনার অনুমোদন দিয়েছে।

সৌদি আরবের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যগুলো জানায়, ইরানের হামলা ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্র যে কয়েকটি আরবদেশের সমুদ্রসীমা ব্যবহারের অনুমতি চেয়েছিল, সৌদি আরবসহ উপসাগরীয় কয়েকটি দেশ সেগুলোর অনুমোদন দিয়েছে।

সৌদির প্রথমসারীর আরবি দৈনিক আশ-শারকুল আওসাত নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে জানায়, উপসাগরীয় সহযোগিতা কাউন্সিল, যেটিতে সৌদি আরবও অন্তর্ভুক্ত, উপসাগরীয় সীমান্তে সেনা মোতায়েন এবং এর ঘাটিসমূহ নিয়মিত ব্যবহার করতে যুক্তরাষ্ট্রকে অনুমতি দিয়েছে।

আরবদেশগুলোর বিরুদ্ধে ইরানের অব্যাহত ষড়যন্ত্র এবং মধ্যপ্রাচ্যে অশান্তি রোধে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি হিসেবে এ অনুমোদন দেয়া হয়েছে বলে সৌদি আরবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

এ যৌথ পদক্ষেপের ফলে মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের সব অপচেষ্টা নস্যাৎ হবে বলে দাবি করা হয় দেশটির পক্ষ থেকে।

সৌদি আরবের ওই কূটনৈতিক সূত্র জানায়, ইরানের ওপর আক্রমন বা কোন যুদ্ধে জড়াতে উপসাগরীয় সীমান্তে মার্কিন সেনা মোতায়েন করা হবে না, বরং একটি সামরিক কৌশলের অংশ হিসেবে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ইরানের পক্ষ থেকে কোন হুমকির সম্মুখীন হলে যুক্তরাষ্ট্র ও উপসাগরীয় জোট এর মাধ্যমে যথাযথ পদক্ষেপ নেবে।

ইরানের হুমকির বিষয়ে রমজানের শেষের দিকে আরব রাষ্ট্রপ্রধানদের নিয়ে মক্কায় একটি বিশেষ সম্মেলন করা হবে বলেও সৌদির পররাষ্ট্র সূত্রে জানানো হয়েছে।

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: