স্ট্রং রুমে পাহারা বিরোধীদের

আজ রাতেই হবে ইভিএম কারচুপি, কমিশনকে চিঠি আপ নেতার!

প্রকাশিত: ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ, ২১ মে ২০১৯

ছবি: ইন্টারনেট

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের এক দিন আগে ইভিএম কারচুপির আতঙ্কে দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। আজ রাতেই বদলে দেওয়া হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের তথ্য, নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়ে এই অভিযোগ করলেন দক্ষিণ দিল্লি লোকসভা কেন্দ্রে আম আদমি পার্টির প্রার্থী রাঘব চাড্ডা। অন্য দিকে উত্তরপ্রদেশে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্বাচনী কেন্দ্র বারাণসীর ঠিক পাশের কেন্দ্র চান্দৌলিতে একটি গাড়িতে করে গণনাকেন্দ্রে ইভিএম রাখার ভিডিয়ো ফুটেজ সামনে আসায় চরমে উঠেছে উত্তেজনা। ইভিএম কারচুপির অভিযোগ তুলে উত্তরপ্রদেশের গাজিপুরে অবস্থান বিক্ষোভে বসেছেন এই কেন্দ্রের জোটপ্রার্থী এবং বহুজন সমাজ পার্টির নেতা আফজল আনসারি।

সাত দফার লোকসভা নির্বাচনের ভোটপর্ব মিটতেই ইভিএম কারচুপির অভিযোগ নিয়ে এককাট্টা দেশের সমস্ত বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। এরই মধ্যে সেই বিতর্কে ইন্ধন জোগালো উত্তরপ্রদেশের চান্দৌলিতে একটি গণনাকেন্দ্রে ট্রাকে করে ইভিএম নামানোর ভিডিয়ো ফুটেজ সামনে আসায়।

ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, গণনাকেন্দ্রের মধ্যেই একটি ঘরে ট্রাকে করে ইভিএম নামানো হচ্ছে। শুধু তাই নয়, নির্বাচনের দু’দিন পর কেন গণনাকেন্দ্রে ইভিএম ঢোকানো হচ্ছে, সেই প্রশ্ন করতেই শোনা যাচ্ছে সমাজবাদী পার্টি কর্মীদের।

অভিযোগ সামনে আসার পর প্রশাসনের তরফে বলা হয়েছে, এই ৩৫ টি ইভিএম নির্বাচনের দিন ‘রিজার্ভ’ বা অতিরিক্ত হিসেবে রাখা হয়েছিল। যাতায়াতের সমস্যার জন্য এই ইভিএম গণনাকেন্দ্রে পৌঁছতে দেরি হয়েছে।

চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তরপ্রদেশের গাজিপুরেও। বহুজন সমাজ পার্টির অভিযোগ, একটি ভোটগণনা কেন্দ্র থেকে ট্রাকে করে ইভিএম বাইরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছিল। এর পরই ওই গণনাকেন্দ্রের বাইরে ধর্নায় বসেন এই কেন্দ্রের জোটপ্রার্থী এবং বহুজন সমাজ পার্টির নেতা আফজল আনসারি। জেলাশাসক ভোটগণনা কেন্দ্রে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার আশ্বাস দেওয়ার পর ধর্না তোলেন তিনি। যদিও বিরোধীদের  তোলা ইভিএম কারচুপির অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়েছে গাজিপুর প্রশাসন। 

এসবের মধ্যেই নির্বাচন কমিশনে চিঠি লিখে আপ নেতা এবং দক্ষিণ দিল্লি লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী রাঘব চাড্ডা জানিয়েছেন, আজ রাতেই ইভিএম কারচুপি করার চেষ্টা চলবে। এই নিয়ে তাঁর কাছে সুনির্দিষ্ট তথ্য আছে বলে দাবি করেছেন রাঘব । এই নিয়ে ২০১৭ সালের পুর নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন তিনি। 

চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘‘পুর নির্বাচনের সময় দক্ষিণ দিল্লিতে স্ট্রং রুমে ঢুকে সিল ভেঙে ইভিএমে কারচুপি করা হয়েছিল। সেই ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না হয়, তা নিশ্চিত করুক নির্বাচন কমিশন।’’

একের পর এক ঘটনা সামনে আসার পরই উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টির প্রধান নরেশ উত্তম প্যাটেল রাজ্যের সমস্ত স্ট্রং রুমে কড়া নজর রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন দলীয় কর্মী সমর্থকদের। এই জন্য সমাজবাদী পার্টি কর্মীদের আট ঘণ্টার শিফ্‌টও তৈরি করে দিয়েছেন তিনি। দলীয় কর্মী সমর্থকদের একই নির্দেশ পাঠিয়েছে বহুজন সমাজ পার্টিও। কংগ্রেস কর্মীদেরও একই পরামর্শ দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়ঙ্কা গাঁধী। সূত্র: আনন্দবাজার।

বিডি২৪লাইভ/এমআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: