প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

২৯টি প্রদেশের ৫৪২টি আসন

ভারতের ভোট গণনা শুরু, বিপুল ব্যবধানে এগিয়ে বিজেপি

২৩ মে ২০১৯ , ১০:১৫:০০

বিশ্বের সবচেয়ে গণতান্ত্রিক দেশ ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনা শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সকাল ৮টা থেকে ৪ হাজার কেন্দ্রে শুরু হয়েছে এ গণনা। এখন পর্যন্ত ৫৪২ আসনের মধ্যে ফল প্রকাশ হয়েছে ৫১৭টি আসনের। যার মধ্যে এগিয়ে রয়েছে নরেন্দ্র মোদির দল ভারতীয় জনতা পার্টি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রকাশিত ফলের মধ্যে ৩১৩ আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি। অন্যদিকে ১১০ আসনে জয় পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস। অন্যান্য দলগুলো পেয়েছে ৯৪টি আসন।

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের বুথফেরত সমীক্ষায় ক্ষমতাসীন বিজেপি জোটের জয়ের আভাস মিললেও বিরোধী জোট এটা মানতে পারছিল না।

আজ সকালে সারা দেশে একযোগে ভোট গণনা শুরু হয়। ভোট গণনা কেন্দ্র করে ভারতজুড়ে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

প্রত্যেক প্রার্থীর প্রতিনিধির উপস্থিতিতে সকাল ৮টায় স্ট্রংরুম খোলার পর পুরো প্রক্রিয়াটি ভিডিও ক্যামেরার সামনে করা হচ্ছে।

নির্বাচন কর্মকর্তারা মনে করছেন, সকাল ৮টা থেকে ভোট গণনা শুরু হলেও অনেক রাতে হয়তো ফল জানা যাবে। তবে প্রতি রাউন্ডের গণনা শেষে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে ফল জানানো হবে।

ইভিএম নিয়ে সংশয় কাটাতে ভোট গণনার আগে ভিভিপ্যাট মেলানোর দাবি নির্বাচন কমিশন খারিজ করে দেয়ায় বড় ধরনের ধাক্কা খেয়েছে বিরোধী দলগুলো।

এমন পরিস্থিতিতে ভোট গণনার শেষ সময় পর্যন্ত ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

এদিকে ১৪টি বুথফেরত জরিপের মধ্যে ১২টিতেই জয়ের আভাসের পর বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন ক্ষমতাসীন দল বিজেপির শীর্ষ নেতারা।

এরই মধ্যে সরকার গঠনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপিপ্রধান অমিত শাহ পরিকল্পনা উন্মোচন করেছেন।

ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ ১১ এপ্রিল শুরু হয়ে ১৯ মে শেষ হয়।

নির্বাচন কমিশন বলছে, এবার ফলাফল খানিকটা বিলম্বিত হতে পারে। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, আসনপ্রতি পাঁচটি করে বুথের ইভিএম আর ভিভিপ্যাটের (প্রিন্টার) ফল মেলানোর কথা। ইভিএমে ভোট দেওয়ার পর ভোটার নিজেই ভিভিপ্যাট প্রিন্টার থেকে ছাপা হয়ে বের হওয়া কাগজের স্লিপে দেখে নিতে পারেন যে- তিনি যেখানে ভোট দিয়েছেন, সেখানেই ভোট পড়েছে কি-না। এই স্লিপটি ভোটার নিতে পারেন না, কেবল দেখতে পারেন।

ভারতের সংসদ দ্বিকক্ষ-বিশিষ্ট। এর মধ্যে একটি হলো লোকসভা, এটি নিম্নকক্ষ; আরেকটি রাজ্যসভা, সেটি উচ্চকক্ষ। লোকসভায় মোট আসন ৫৪৫। এর মধ্যে ৫৪৩ আসনে সরাসরি নির্বাচন হয়। বাকি দুটি আসনে অ্যাংলো - ইন্ডিয়ান প্রতিনিধিকে মনোনীত করে আনা হয়। সরকার গঠনের জন্য লোকসভায় ২৭২ আসনের প্রয়োজন।

রাজ্যসভার সদস্য সংখ্যা ২৫০। এরা রাজ্য বা অঞ্চলগুলোর বিধানসভার সদস্যদের ভোটে রাজ্যসভায় আসেন।৫৪৩টি আসনে ভোট হওয়ার কথা থাকলেও একটি আসনে নির্বাচন স্থগিত করা হয়।

এবার নির্বাচনের সপ্তম ও শেষ দফা ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই বিভিন্ন সংস্থা জানাতে থাকে বুথফেরত জরিপের (এক্সিট পোল) ফলাফল। বেশিরভাগ সংস্থার জরিপ মতে, এবারও নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি প্রায় ৩০০ আসন পেয়ে সরকার গঠন করতে চলেছে। অর্থাৎ ফের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন গুজরাটের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী।

১৭তম লোকসভার ২৯টি প্রদেশের ৫৪২টি আসনের সাত ধাপের নির্বাচনী তফসিল ঘোষিত হয়েছে। এবার প্রায় ৯০ কোটি ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। গত ১১ এপ্রিল থেকে ১৯ মে পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় এই নির্বাচন।

১৭তম লোকসভার ২৯টি প্রদেশের ৫৪৩টি আসনের সাত ধাপের নির্বাচনী তফসিল ঘোষিত হয়েছে। এবার প্রায় ৯০ কোটি ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। গত ১১ এপ্রিল থেকে ১৯ মে পর্যন্ত চলে এই নির্বাচন। এর মধ্যে ১১ এপ্রিল ৯১টি, ১৮ এপ্রিল ৯৭টি, ২৩ এপ্রিল ১১৫টি, ২৯ এপ্রিল ৭১টি, ৬ মে ৫১টি, ১২ মে ৫৯টি এবং ১৯ মে ৫৯টি আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: