প্রচ্ছদ / ধর্ম ও জীবন / বিস্তারিত

বিবাহের জন্য মেয়ে দেখতে গেলে টাকা দেওয়া জায়েজ?

প্রকাশিত: ০৭:০০ পূর্বাহ্ণ, ২৬ মে ২০১৯

ছবি: প্রতীকী

বিবাহ করতে প্রত্যেক পুরুষকেই মেয়ে পছন্দ করা আবশ্যক। যার কারণে একাধিক মেয়ে দেখার প্রয়োজন হয়। আমাদের দেশে প্রচলিত প্রথা অনুযায়ী মেয়ে দেখে টাকা দেওয়ার নিয়ম আছে। কুরআন মাজিদ এর আইন অনুযায়ী এই প্রথা বা নিয়মটি জায়েজ কি না, নিম্নে আলোচনা:

কুরআন শরীফে এ বিষয়ে নিষেধ আছে কি না বলতে পারব না। তবে যতদুর জানি হারামের লিস্টে সরাসরি এই বিষয়ে কিছুই লেখা নেই। আমার বুঝে আমি বলছি, মেয়ে দেখতে যেয়ে টাকা দেয়া হারাম / নাযায়েয হওয়ার কথা না। কারণ যা কিছু হারাম / নাযায়েয তা সরাসরি মানুষ এবং সমাজের জন্য ক্ষতিকারক। আর মেয়ে দেখতে যেয়ে তাকে টাকা দেয়া, কারও বাড়িতে গেলে কিছু নিয়ে যাওয়া এগুলোতে নাযায়েযের কিছু নেই। তবে যা নিয়ে যাবেন তা হালাল নিয়ে যাবেন।

টাকা কেন, টাকা ই দিতে হবে কেন, কোন উপহার দেন যেমন, আংটি, মোবাইল ফোন, ইত্যাদি ও দেয় অনেকে। এটা স্বেচ্ছায় দেয়া যায়, বাধ্যতা হলে হবে না। ছেলে বা মেয়ে কাউকে কেউ বাধ্য করলে হবে না। তারাও কাউকে বাধ্য করতে পারবে না। আবার না দিলেও মন খারাপ করা যাবে না। আমার এই উত্তর খণ্ডনযোগ্য তবে একট কথা, আপনি কোন মুফতি বা আলেমের পরামর্শ নিন।

এটা মূলত এক ধরণের সামাজিকতা। যেমন আপনি একজনের বাড়িতে গিয়েছেন সেখানে মিষ্টি নিয়ে গেলেন। বা আপনি মেয়েকে দেখতে যাচ্ছেন সুতরাং সেই হিসাবে তাকে উপহার সামগ্রী দেওয়া যেতেই পারে। এখানে টাকার পরিবর্তে অনেকে বই দিয়ে থাকেন, হতে পারে সেটা ইসলামিক বই। আর উপহার হিসাবেই অনেকে টাকা দিয়ে থাকেন। তবে এই টাকা দিয়ে তাকে মূল্যায়ন করা হয়েছে এমনটি নয়। সুতরাং এখানে হারামের কিছু নেই।

দেশের জনপ্রিয় টেলিভিশনে অনুষ্ঠানে এমন প্রশ্নের জবাবে বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মাদ সাইফুল্লাহ বলেন, এটা মূলত প্রচলনের সঙ্গে সম্পৃক্ত বিষয়। যদি মেয়ে দেখার পর প্রচলন থাকে কোনো  উপহার বা টাকা দেওয়ার, তাহলে সেখানে উপহার বা টাকা দেওয়া জায়েজ রয়েছে। এটা নাজায়েজ নয়। শরীয়ার মতে, এটি নিষিদ্ধ বিষয় নয়।

বিডি২৪লাইভ/এজে

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: