প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

রহস্যজনকভাবে বালুর নিচে যুবকের লাশ! অতঃপর...

প্রকাশিত: ০৯:৫৫ অপরাহ্ণ, ২৬ মে ২০১৯

ছবি: প্রতিনিধি

শেরপুরের নালিতবাড়ীর উপজেলার সীমান্তবর্তী নয়াবিল গ্রামের বানিয়াপাড়া থেকে গত ৮ এপ্রিল সোমবার রাতে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলা থেকে শাহীন কোম্পানী নামে তিনটি ট্রাক বালু নিতে আসে। এ সময় তারা স্থানীয় বালু ব্যবসায়ী যুবলীগ নেতা সোহেল মুন্সী ও জিয়ার কাছ থেকে বালু ক্রয় করে।

পরদিন শনিবার ভোরে দেলদুয়ারের নাটিয়াপাড়ায় বালু নামানোর সময় একটি ট্রাকের (নং- ঢাকা মেট্রো-ট-২০-৬৫২৪) বালুর নিচে অজ্ঞাত এক যুবকের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ পাওয়া যায়। এ সময় ট্রাক ড্রাইভার শহীদ মিয়া পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে দেলদুয়ার থানার পুলিশ ওই মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। এ ঘটনায় দেলদুয়ার থানায় অপমৃত্যুর একটি মামলা হয়। পরে মৃত যুবকের পরিচয় না পাওয়ায় তাঁকে টাঙ্গাইল সামাজিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে দেখা যায় মৃত যুবককে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। পরে টাঙ্গাইলের ডিবি পুলিশের একটি দল গত ৩০ এপ্রিল রাতে সন্দেহভাজন আসামি নালিতবাড়ীর সোহেল মুন্সী ও সোহাগ মিয়া আটক করে দেলদুয়ার থানায় সোপর্দ করে। কিন্তু রহস্যজনকভাবে ৩১ এপ্রিল রাতে পুলিশ ওই দুই আসামিকে নালিতাবাড়ীর পৌর মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিকীর জিম্মায় হস্তান্তর করে। এনিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়।

এ ঘটনায় গণমাধ্যমে বিভিন্ন শিরোনামে খবর প্রকাশের পর পুলিশ নড়েচড়ে বসে এবং দেলদুয়ার থানার এসআই আব্দুল হান্নান বাদী হয়ে গত ২ মে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে তদন্তের জন্য মামলাটি টাঙ্গাইল দক্ষিণ ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তদন্তের এক পর্যায়ে গত ২০ মে নালিতাবাড়ী থেকে ফের বালু বিক্রেতা সোহেল মুন্সী (৩০) জনি মিয়া (১৯), শিপন (২৩) ও সোহেল (২৩) নামে ৪ জনকে  আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য টাঙ্গাইলে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাদের দীর্ঘ ৪দিন জিজ্ঞাসাবাদ করে ডিবি পুলিশের একটি চৌকস দল।

টাঙ্গাইল দক্ষিণ ডিবি পুলিশের ওসি শ্যামল কুমার দত্ত জানান, জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ২৫ মে রাতে গ্রেফতার সোহেল মুন্সীসহ ৪ আসামি টাঙ্গাইল সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট রূপম কুমার দাসের কাছে ওই ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

তিনি বলেন, চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলায় দুটো পার্ট রয়েছে। এখনি সব তথ্য প্রকাশ করা সম্ভব নয়। তবে আমরা দ্রুত এ মামলার ভিকটিম নিহত অজ্ঞাত যুবকের পরিচয়সহ আর গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিডিয়াকে জানাব।

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: