প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

বাকশাল প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করছে আ’লীগ

২৬ মে ২০১৯ , ১০:৫২:০০

ছবি: নিজস্ব

আওয়ামী লীগ হচ্ছে সেই দল যে দল ১৯৭৫ সালে বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিল। আজকে সেই বাকশালকে আবার প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রবিবার (২৬ মে) সন্ধ্যায় রাজধানীর বিজয়নগরে অবস্থিত হোটেল অরনেট এ বাংলাদেশ লেবার পার্টির উদ্যোগে বিএনপির চেয়ারপারসন ও ২০ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় মির্জা ফখরুল বলেন, সব সময় শুধু সংবিধানের দোহাই দিচ্ছে। কোন সংবিধান, এটা কি ৭২ সালের সংবিধান? সরকার একদিকে গণতন্ত্রের কথা বলে অন্যদিকে গণতন্ত্রকে হত্যা করে। একদিকে সংবিধানের কথা বলে আবার তারাই সংবিধান ভঙ্গ করে। যেমনভাবে সংবিধান ভঙ্গ করে দেশনেত্রী বেগম জিয়াকে আটক রাখা হয়েছে। মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল হচ্ছে আদালত, সেখানেও মানুষ এখন আর ভরসা রাখতে পারছেন না। অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলতে হয়- আদালতেও আজ দলীয় ক্ষমতা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

পবিত্র ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে দেশের সড়ক ও রেলপথসহ সর্বত্র চরম নৈরাজ্য-লুটপাট চলছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, সাধারণ যাত্রীরা টিকিট কেনার আগেই অর্ধেক টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। চরম নৈরাজ্য চলছে। সর্বক্ষেত্রে লুটপাট আর নৈরাজ্য চলছে। কোনও জবাবদিহিতা নেই। কে কার কথা শুনবে? কোথাও কোনও মা-বাবা তো নেই। কারণ বর্তমানে মানুষের বেঁচে থাকার অধিকার নেই, গণতন্ত্র নেই।

গুম, খুনের কথা উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই ধরনের নির্যাতনের ঘটনার সাথে বাংলাদেশের মানুষের আগে কোনও পরিচয় ছিল না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই মাস সব দিক দিয়ে কষ্টের মাস। সবসময় আমরা পালন করি সিয়ামের মধ্য দিয়ে। কিন্তু দুর্ভাগ্য, গত এক যুগ ধরে আমাদেরকে আরও বেশি পরীক্ষার মুখে থাকতে হচ্ছে। কখনও আমাদের থাকতে হচ্ছে জেলখানায় কখনওবা তার চেয়ে কষ্টের জায়গায়। এমন একটি নির্বাচন হয়ে গেল যে নির্বাচন সমস্ত আশাকে ধুলিস্মাৎ করে দিয়েছে। অবৈধভাবে আগের রাতে ভোট চুরি করে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে। সরকার বন্দুকের জোরে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আছে। গণতন্ত্রের নাম করে জনগণের ওপর চেপে বসেছে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থা ধসে গেছে। এর প্রধান কারণ হলো দেশে কোন জবাবদিহিতা নেই। কার কাছে জবাব দিবে? বাবা-মাতো নেই। তিনি বলেন, দেশে আজ গনতন্ত্র নেই, স্বাধীনতা নেই। এখন দেখা যাচ্ছে এক শ্রেণীর বুদ্ধিজীবীরা সরকারের পক্ষে সাফাই গেয়ে চাটুকারিতা শুরু করেছেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, পত্রিকাগুলোতে সাংবাদিকদের ছাঁটাই শুরু হয়েছে। কে থাকবে কে থাকবে না তাও বলে দেয়া হচ্ছে। এর মাধ্যমে বুঝা যাচ্ছে সরকার একটি একদলীয় বাকশালের পথে হাঁটছে।

তিনি বলেন, দেশে আজ ৫ কোটি বেকার রয়েছে। এর মাধ্যমে বুঝা যায় দেশের অর্থনৈতিক অবকাঠামো কতটা বিপর্যস্ত।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জন্মই হয়েছে গনতান্ত্রিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। তিনি একজন কারানির্যাতিত বীর মুক্তিযোদ্ধা।

ফখরুল বলেন, ১৯৭১ সালে আমরা যেভাবে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে দেশকে স্বাধীন করেছি আমার বিশ্বাস বাংলাদেশের জনগণ ঠিক তেমনি আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনবেই ইনশাআল্লাহ।

বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে ইফতার ও দোয়া মাহফিলে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নির্বাহী পরিষদ সদস্য অধ্যাপক মুজিবুর রহমান, মাওলানা আব্দুল হালিম, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান ও হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিডি২৪লাইভ/এমই/এআইআর

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: