মমতার হুঁশিয়ারি

   
প্রকাশিত: ৫:৫৫ অপরাহ্ণ, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

এনআরসির নামে আগুন নিয়ে না খেলার হুঁশিয়ারি দিলেন ওপার বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার বিজেপিকে (BJP) এনআরসির নামে আগুন নিয়ে না খেলার হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এসময় তিনি বলেন, “আমরা কখনই বাংলায় এনআরসিকে (NRC) চালু করার অনুমতি দেব না। আমরা কোনও মতেই ধর্মীয় ও বর্ণের ভিত্তিতে মানুষকে বিভক্ত করতে দেব না। অসমের এনআরসিকেও আমরা সমর্থন করিনি। সেখানে বিজেপি পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার করে অসমের জনগণকে চুপ করিয়ে রাখতে পেরেছে তবে এভাবে বাংলাকে চুপ করিয়ে রাখতে পারবে না তাঁরা”। খবর এনডিটিভি

অসমে প্রয়োগ হওয়া এনআরসি-র বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বৃহস্পতিবার উত্তর কলকাতার সিঁথি থেকে শ্যামবাজারের পাঁচ মাথার মোড়ের ক্রসিং পর্যন্ত এক বিক্ষোভ মিছিলকে নেতৃত্ব দেন।

এর আগেও অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর চূড়ান্ত তালিকার বিরোধিতায় সরব হয় রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস । অসমের এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েন ১৯ লক্ষ মানুষ। এনআরসির নাম করে বাঙালিদের অসম থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলে জোড়াফুল শিবিরের দাবি, তালিকার বাইরে থাকা ১৯ লক্ষ মানুষের দায়িত্ব নিতে হবে কেন্দ্রকেই।

১৯ লক্ষ মানুষের জাতীয় নাগরিকপঞ্জী তালিকার বাইরে থাকা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অসমের এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পরেই ট্যুইটে তিনি এআরসিকে “ব্যর্থ নাটকীয়তা” বলে মন্তব্য করেন। পাশাপাশি তিনি এও দাবি করেন যে, অন্য কোনও অভিসন্ধি নিয়ে এই পদক্ষেপটি করেছে বিজেপি সরকার।

এর আগে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এনআরসি প্রসঙ্গে বলেন, দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার কথা ভেবে, বাংলাদেশি মুসলিমদের তাড়াতে এ রাজ্যেও চালু করা হবে এনআরসি। তিনি বলেন, নাগরিকত্ত্ব সংশোধনী বিলের মাধ্যমে হিন্দু শরণার্থীদের স্বার্থ রক্ষায় বদ্ধপরিকর বিজেপি। তিনি এও অভিযোগ করেন, সংখ্যালঘু ভোটব্যাঙ্ক ধরে রাখতে, সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে বাংলাদেশি মুসলিমদের অনুপ্রবেশে সহায়তা করছে তৃণমূল কংগ্রেস।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: