ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০১৯

এবার শ্রীলঙ্কায় সিনেমা হলে বিস্ফোরণ

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৪:০৮:০৫

শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডে উপলক্ষ্যে প্রার্থনার সময় ৭টি স্থানে একইসঙ্গে সিরিজ বোমা হামলার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার রাজধানী কলম্বোর স্যাভয় নামের জনপ্রিয় একটি সিনেমা হলের পাশে বিস্ফোরণে ঘটেছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) বিস্ফোরণের ঘটনা নিশ্চিত করে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার শ্রীলঙ্কা পুলিশ ওই সিনেমা হলের কাছে একটি নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণ ঘটানোর কথা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে শ্রীলঙ্কার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ ফার্স্ট পুলিশের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, স্যাভয় সিনেমার কাছে রাখা একটি সন্দেহজনক মোটরবাইক পরীক্ষা করার পদক্ষেপ নিয়েছে পুলিশ।

মোটরবাইকটির আসন খুলতে একটি নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে বলে পুলিশের গণমাধ্যম ইউনিট জানিয়েছে। মোটরস্কুটারটিতে কোনো বিস্ফোরক ছিল না বলে পরে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, রোববার ইস্টার সানডে উদযাপনের সময় গির্জা ও হোটেলে ভয়াবহ বোমা হামলার ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩৫৯ জনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

শ্রীলঙ্কার গির্জা ও হোটেলে এই সিরিজ বোমা হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। গত রোববার সকালের ভয়াবহ ওই হামলায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত পাঁচ শতাধিক মানুষ।

শীলঙ্কায় নিহতদের মধ্যে ৩৮ জন বিদেশি আছেন বলে এখন পর্যন্ত জানা গেছে। তাদের মধ্যে বাংলাদেশের একজন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই শেখ সেলিমের নাতি। ভয়াবহ সেই বোমা হামলার সময় শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছিলেন শেখ সেলিমের মেয়ে ও জামাতা।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) আইএস পরিচালিত সংবাদমাধ্যম আমাক নিউজ অ্যাজেন্সিতে শ্রীলঙ্কায় হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দেয়া হয়েছে। এর আগে দেশটির চরমপন্থী ইসলামিক গোষ্ঠী ন্যাশনাল তাওহীদ জামায়াতকে হামলার মূল সন্দেহভাজন হিসেবে দায়ী করে সরকার।

বিডি২৪লাইভ/এসএএস

সর্বশেষ

এডিটর ইন চিফ: আমিরুল ইসলাম আসাদ
বিডি২৪লাইভ মিডিয়া (প্রাঃ) লিঃ, বাড়ি # ৩৫/১০, রোড # ১১, শেখেরটেক, মোহাম্মদপুর, ঢাকা - ১২০৭, 
ই-মেইলঃ info@bd24live.com, 
ফোন: ০২-৫৮১৫৭৭৪৪

বার্তা প্রধান: ০৯৬১১৬৭৭১৯০
নিউজ রুম: ০৯৬১১৬৭৭১৯১
মফস্বল ডেস্ক: ০১৫৫২৫৯২৫০২
ই: office.bd24live@gmail.com

Site Developed & Maintaned by: Primex Systems