এশিয়া কাপ নিয়ে যা বললেন আশরাফুল

২১ ২১, ২০১৮ ২০:৩৮:০০

এশিয়ার সবচেয়ে বড় ক্রিকেটীয় আসর ‘এশিয়া কাপ’ শুরু হতে আর দিন দুয়েক বাকি। সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে বসছে এবারের আসর। ইতোমধ্যে টুর্নামেন্টকে ঘিরে নানান জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়ে গেছে।

প্রিয় দলকে নিয়ে নানান জন নানান মতাতম পোষণ করছেন। এ তালিকায় পিছিয়ে নেই বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলও।

আশরাফুলের মতে, এবারের এশিয়া কাপে ভীষণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। তার মতে, প্রতিটি দলই বেশ শক্তিশালী।

তবে, পাকিস্তানকে সবচেয়ে শক্তিশালী দাবি করেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তার মতে, পাকিস্থান নিজেদের হোম ভেন্যুতে খেলবে। তারা এই কন্ডিশনে দীর্ঘদিন ধরে খেলে আসছে। যা তাদের জন্য বেশ সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। কন্ডিশন পরিচিতি ছাড়াও পাকিস্তান তাদের ভালো ক্রিকেটের জন্যই এশিয়া কাপের দাবিদার থাকবে বলে মনে করেন আশরাফুল।

এছাড়া বাংলাদেশকে একেবারে ফেলে দিচ্ছেন না আশরাফুল। তিনি বলেন, টাইগাররা দুইবার এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলেছে, ‘বাংলাদেশ দলের জন্য প্রথম ম্যাচটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। তারা যদি শ্রীলঙ্কাকে হারাতে পারে (প্রথম ম্যাচে) তবে ছন্দ পাবে, পরে আফগানিস্তান ম্যাচটা সহজ হয়ে যাবে। আমরা দুইবার এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলেছি। তবে একবারও জিততে পারিনি। আমার মনে হয়, এবার আমরা বড় কিছুর আশায় থাকব।’

এক সময় বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় তারকা ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। ফিক্সিংয়ের কালো থাবায় যার জীবন থেকে হারিয়ে গেছে পাঁচটি বছর। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আবারও জাতীয় দলে ফেরার আশায় কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এই তারকা ব্যাটসম্যান। ঘরোয়া ন্যাশনাল ক্রিকেট লিগকে সামনে রেখে প্রস্তুত করছেন নিজেকে।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৩ সালে যখন এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল এশিয়ান দেশগুলোর সুনাম পরিমাপ করার জন্য এটি প্রতিষ্ঠিত করেন। এটি প্রকৃতপক্ষে প্রতি দুই বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয় ১৯৮৪ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাত এর শারজাহ তে যেখানে কাউন্সিলের ভিত্তি ছিল ১৯৯৫ পর্যন্ত।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল নিয়ম করে দিয়েছে যে এশিয়া কাপের সকল খেলা অনুষ্ঠিত হবে অফিসিয়াল একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হিসেবে। ভারত এশিয়া কাপ জিতেছে সর্বোচ্চবার (৬ বার)। ভারত প্রতিটি এশিয়া কাপ এ অংশগ্রহণ করেছে ১৯৮৪ সাল থেকে।(ভারত বের হয়ে যায় শ্রীলঙ্কার সাথে আন্তরিকতাহীন ক্রিকেটের কারণে), ১৯৯৩ সালে (যখন এটি বাতিল হয়ে যায় ভারত ও পাকিস্তান এর মধ্যে রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে)। কিন্তু শ্রীলঙ্কা এশিয়া কাপ শুরু থেকে অংশগ্রহণ করে আসছে। এসিসি ঘোষণা করেছে যে প্রতি দুই বছর পর পর টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে ২০০৮ সাল থেকে।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।