হাবাসপুরে মোহসীন স্বরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:১৩:০১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সাবেক প্রফেসর, কলা অনুষদের সাবেক ডিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক সদস্য এবং ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার হাবাসপুর গ্রামের কৃতি সন্তান ড. প্রফেসর কে এম মোহসীন স্বরনে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকালে হাবাসপুর বানী পাঠাগার ও ক্লাব চত্বরে বানী পাঠাগার ও ক্লাবের আয়োজনে এ স্বরণ সভায় রাজবাড়ী জেলা পরিষদ সদস্য প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ শাহজাহান আলী’র সভাপতিত্বে ও বানী পাঠাগার ও ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. মোকসেদ আলী’র সঞ্চালনায় স্বরণ সভায় বক্তব্য রাখেন ড. প্রফেসর কে. এম মোহসীন’র ছোট ভাই পাংশা সরকারী জর্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক কে.এম নজীবুল্লাহ, হাবাসপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল আলীম মন্ডল, হাবাসপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. আব্দুল লতিফ খান, হাবাসপুর কে. রাজ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক নির্মল কুমার সাহা, হাবাসপুর কে.রাজ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. চাদঁ আলী প্রামানিক, হাবাসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিহার রঞ্জন পোদ্দার, বিএনপি নেতা মো. ফজলুল হক টুকু, হাবাসপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. ফারুখ হোসেন, হাবাসপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ জহুরুল হক সবুজ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। আলোচনা সভা শেষে মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনজাত করেন হাফেজ মো. সোহেল হাবীব।

এ সময় বক্তারা বলেন, ড. মোহসীন’র অভাব আর কোনদিন পূরণ হবে না তিনি ছিলেন এ এলাকার সর্বজন শ্রদ্ধেয় অবিভাবক। আজ আমরা সেই অবিভাবককে হারিয়ে শোকাহত। ড. কে এম মোহসীন ১৯৫৪ সালে হাবাসপুর কে.রাজ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস এস সি পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে উর্ত্তীণ হন। ১৯৫৬ সালে ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজ থেকে এইচ এসসি পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে উর্ত্তীণ হন, ১৯৫৯ সালে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় থেকে বি এ অনার্স (ইতিহাস) ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৬০ সালে একই বিশ^বিদ্যালয় থেকে এম.এ ডিগ্রি লাভ করেন এবং ১৯৬৬ সালে লন্ডন বিশ^বিদ্যালয় থেকে পি.এইচ.ডি ডিগ্রী অর্জন করেছিলেন।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।