ফেসবুকে প্রেম, রিসোর্টে গিয়ে শারীরিক সম্পর্ক, ধর্ষণের অভিযোগে প্রেমিক গ্রেফতার

২০ জুন ২০২১, ৭:৪৪:২৭

খুলনা বটিয়াঘাটা উপজেলার গোপালখালী ‘সিপাল রিসোর্ট’ (ওয়াইসি রিসোর্ট) সেন্টারে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে সবুজ নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতারকৃত ধর্ষক সবুজকে আজ রবিবার (২০ জুন) আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকাল শনিবার ধর্ষণের এঘটনা ঘটেছে। ধর্ষক সবুজ মন্ডল (২৯) বটিয়াঘাটার হোগলাবুনিয়া গ্রামের প্রভাস মন্ডলের পুত্র।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, পাইকগাছা উপজেলার এক তরুণীর সাথে ফেসবুকের মাধ্যমে বটিয়াঘাটা উপজেলার হেতালবুনিয়া গ্রামের সবুজ নামের এক যুবকের পরিচয় হয়। ঘটনার দিন ১৯ জুন সবুজ মোবাইলের মাধ্যমে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওয়াইসি রিসোর্ট বর্তমানে নামে পরিচিত সিপাল রিসোর্ট সেন্টারের একটি কক্ষ ভাড়া করে। সেখানে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢুকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত অবস্থান করে। সেখানে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে সবুজ। এ কাজে রিসোর্ট সেন্টারের দায়িত্বরত ম্যানেজার সহযোগিতা করে বলে জানা গেছে। ঘটনার পর তাকে বিয়ে করেছে বলে সবুজ ওই মেয়েকে তাদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় এবং মোবাইল ফোন বন্ধ করে রাখে। পরে মেয়েটি বটিয়াঘাটা থানায় মামলা করেছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বটিয়াঘাটা থানার এস আই মো. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, মামলার এজাহারনামীয় আসামী সবুজকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য আদালতের মাধ্যমে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রেরণ করেছি। তদন্ত চলছে।

অন্যদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ ওয়াইসি রিসোর্টটি কক্সবাজারের একজন ব্যবসায়ী কিনে সেটির নামকরণ করেছেন ‘সিপাল রিসোর্ট’। তিনি ক্রয়ের পর থেকে অর্থের বিনিময়ে সেখানে অসামাজিক কার্যকলাপের সুযোগ করে দেয়া হয়। প্রতিদিন ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে সেখানে। এছাড়া মাদক সেবন ও জুয়া খেলার নিরাপদ আশ্রয়স্থল হয়ে উঠেছে রিসোর্টটি।

‘সিপাল রিসোর্ট’র তত্তাবধায়ক মোঃ মশিউর রহমান বললেন, “অনেকদিন রিসোর্টটি বন্ধ। কাউকে তো প্রবেশই করতে দিচ্ছি না রিসোর্টে। ধর্ষণের কোন ঘটনা তো শুনিনি ভাই।”

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।