অর্পিতার পর প্রাক্তন মন্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে আলোচনায় সেই ‘ঝিলিক’

৩০ জুলাই ২০২২, ১১:৩০:২২

পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অভিনেত্রী অর্পিতা মুখার্জির কাণ্ডে তোলপাড় ভারতের রাজ্য রাজনীতি। টলিউডের মন্ত্রী-যোগ খোঁজার হিড়িকে ফের চর্চায় মদন মিত্রের সঙ্গে অভিনেত্রী শ্রীতমা ভট্টাচার্যের ‘ঘনিষ্ঠ’ ছবি। যাকে কিনা ভারতীয় সিরিয়াল ‘মা’ এর ঝিলিক নামেই চেনে সবাই। সত্যিই কি দু’জনে কাছাকাছি?

এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার কথা বলেন এই অভিনেত্রীর সঙ্গে। এ বিষয়ে শ্রীতমা বলেন—‘কে বলছে এসব? আমাকে কিন্তু কেউ কিচ্ছু বলেননি। এ নিয়ে কেউ কোনো চাপও তৈরি করছেন না।’

মুখে কেউ কিছু বলছেন না। কিন্তু টলিপাড়ায় জোর চর্চা চলছে। এ তথ্য জানাতেই শ্রীতমা বলেন, ‘আমার সঙ্গে বা যেকোনো তারকার সঙ্গে রাজনীতিবিদদের জড়িয়ে এত কথা কিন্তু অর্থহীন। রাজনীতিতে আসার আগেও অভিনেত্রী শ্রীতমা কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর আশীর্বাদ পেয়েছেন। মমতা মুখার্জি গুণীর কদর করতে জানেন। শিল্পীদের খুব ভালোওবাসেন। সেই সূত্রে আমাদের পারস্পরিক আদানপ্রদান থাকেই। আর নির্বাচনে জিতে পৌরমাতা হওয়ার পরে রাজনীতিবিদদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক একদম পেশাগত। ওরা কেউ আমার মন্ত্রী, বিধায়ক বা সাংসদ। আমি পৌরমাতা। যেমন: মদন মিত্রের এলাকায় আমি পৌরমাতা।’

এর বাইরে মদন মিত্রর সঙ্গে আর কোনো সম্পর্ক নেই? জবাবে শ্রীতমা বলেন, ‘হ্যাঁ, আছে তো। ওনাকে আমি আমার বাবার বন্ধু হিসেবে বহু বছর আগে থেকেই চিনি। মদন মিত্রের সঙ্গে আমাদের পারিবারিক সম্পর্ক। বাবার ওপেন হার্ট সার্জারির সময় মদনদা এবং ওনার পুরো পরিবার আমাদের পাশে ছিলেন। অস্ত্রোপচার থেকে ওষুধ— বাবার চিকিৎসার যাবতীয় দায়িত্ব কামারহাটির বিধায়ক নিজের হাতে তুলে নিয়েছিলেন। বাবা চলে যাওয়ার পরেও উনিই আমার বাবার জায়গা নিয়েছেন। মদন মিত্র শ্রীতমা ভট্টাচার্যের অভিভাবক। আর আমাকে নিয়ে গুঞ্জন তো নতুন নয়!’

‘তোমায় ছাড়া ঘুম আসে না মা’— স্টার জলসার পর্দায় গানটি বেজে উঠতেই কারো বোঝার বাকি থাকে না এটি ‘মা’ ধারাবাহিক নাটকের টাইটেল গান। জনপ্রিয় এ ধারাবিকের কেন্দ্রীয় নারী চরিত্রের নাম ঝিলিক। আর চরিত্রটি রূপায়ন করে দারুণ দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন অভিনেত্রী শ্রীতমা ভট্টাচার্য। কিছুদিন আগে পশ্চিমবঙ্গের কামারহাটি পৌরসভার ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী হয়ে বিজয়ী হন শ্রীতমা।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।