টঙ্গীতে সাংবাদিককে মারধর, ছাত্রলীগ সভাপতি প্রার্থীসহ আটক ৭

৫ আগস্ট ২০২২, ৩:৫৯:২১

গাজীপুরের টঙ্গীতে সাংবাদিককে মারধর, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও চুরি করা লোহা বিক্রির টাকা ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্বের ঘটনায় ৭ জনকে আটক করেছে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশ। বুধবার রাত ও বৃহস্পতিবার দিনভর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, টঙ্গী পশ্চিম থানা ছাত্রলীগের সভাপতি পদপ্রার্থী রাশেদ খান মেনন (২৫), স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী এনামুল হক অনিক (৩১), তাইজুল ইসলাম (২৫), মোজাফফর (২৮), আল আমিন (৩৯), রিফাত (২৩), আজহার (১৭)।

এলাকাবাসী জানান, মাসখানেক আগে কাঁঠালদিয়া বস্তির উচ্ছেদকৃত জায়গায় বাংলাদেশ স্টিল করপোরেশনের নির্মাণাধীন ভবনের বিপুল পরিমাণ লোহার রড চুরি হয়। ওই লোহা বিক্রির টাকার ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই রাশেদ খান মেনন ও অনিক গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল।

এছাড়াও রাজনৈতিক মিছিলে যাওয়া, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিল। মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে মিত্তিবাড়ি এলাকায় দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারি হয়। পরে উভয়গ্রুপ থানায় অভিযোগ করতে গেলে থানা ফটকের সামনে ফের সংঘর্ষ বাধে।

এ সময় সংঘর্ষের ভিডিও ধারণ করায় এশিয়ান টেলিভিশনের প্রতিনিধি আরিফ চৌধুরীর ওপর হামলা চালায় উভয়গ্রুপের সদস্যরা। একপর্যায়ে হামলাকারীরা সাংবাদিক আরিফের মোবাইল ফোন, মানিব্যাগ ও আইডি কার্ড কেড়ে নেয়। এ ঘটনায় বুধবার বিকালে আরিফ চৌধুরী বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সাংবাদিক আরিফ চৌধুরী বলেন, রাত ১১টার দিকে মিত্তিবাড়ি এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারি হয়। ওই ঘটনার সংবাদ সংগ্রহ শেষে টঙ্গী পশ্চিম থানার সামনে আসলে রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে থানায় অভিযোগ দিতে আসা দুই গ্রুপের মধ্যে ফের সংঘর্ষ বাধে।

এ সময় সংঘর্ষের ভিডিও ধারণ করার সময় আশরাফুল ইসলাম বাবু নামে একজন আমার মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। পরে তাদের ২০-৩০ জন কর্মী-সমর্থক আমাকে চারপাশ থেকে ঘিরে কিলঘুসি মেরে আমার সঙ্গে থাকা দুইটি মোবাইল ফোন, মানিব্যাগ ও আইডি কার্ড ছিনিয়ে নেয়। ওই সময় থানা পুলিশের টহল টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুই গ্রুপকে লাঠিচার্জ করে।

এ ব্যাপারে টঙ্গী পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহ আলম বলেন, সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় এ পর্যন্ত ৭ জনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে। থানায় একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।