মসজিদে মালিককের সাথে নামাজ পড়ছিলেন চোর, অন্যরা করছিলো চুরি

৭ আগস্ট ২০২২, ৭:১৭:০৪

রাজধানীর রূপনগরে একটি স্বর্ণের দোকানে চুরির ঘটনায় জড়িত অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তাররা হলেন, মো. আলাউদ্দিন (২৭) ও মো. শাহজালাল (৪২)। এসময়  তাদের কাছ থেকে চুরি যাওয়া ১৬ ভরি স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়। পুলিশ বলছে, ভুক্তভোগী স্বর্ণ দোকানি মসজিদে নামাজ পড়তে গেলে তার ওপর নজরদারি করছিল চোর চক্রের এক সদস্য। এর ফাঁকে চক্রের বাকি সদস্যরা ভুক্তভোগীর দোকানের তালা ভেঙে ভেতর থেকে স্বর্ণালংকার চুরি করে পালিয়ে যায়।

আজ রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. জামাল উদ্দিন মোল্লা এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, চুরির ঘটনায় মিরপুরের রূপনগর থানায় ভুক্তভোগীর দায়ের করা একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজে বিশ্লেষণ ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশের ধারাবাহিক অভিযানে এক আসামির অবস্থান শনাক্ত করা হয়। পরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কর্ণফুলীর স্বর্ণারটেক গ্রাম থেকে আসামি মো. আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ জিজ্ঞাসাবাদে তার দেওয়া তথ্যমতে, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার সোয়াগঞ্জ বাজারের বিসমিল্লাহ জুয়েলার্স দোকানের মালিক মো. শাহজালালকে গ্রেপ্তার করা হয়। আসামি শাহজালালের দোকান থেকে চুরি যাওয়া ১৬ ভরি স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে পুলিশ।

গ্রফতার  দুই আসামির মধ্যে আলাউদ্দিন কুমিল্লার মুরাদনগর থানার মুখশাহির দারোরা বাজার এলাকার আলী হোসেনের ছেলে। শাহজালাল কুমিল্লার সদর দক্ষিণ কুমিল্লা থানার কমলাপুর গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে। গ্রেপ্তাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তাদের চক্রের এক সদস্য ভুক্তভোগীকে নজরদারি করতে মসজিদে তার সঙ্গে নামাজও আদায় করেছিলেন। এদিকে চক্রের বাকি সদস্যরা ভুক্তভোগীর দোকানের তালা ভেঙে ভেতর থেকে স্বর্ণালংকার চুরি করে পালিয়ে যান।

তিনি আরো জানান, ২৯ জুলাই দুপুরে ভুক্তভোগী আফজাল হোসেন একই এলাকায় রজনীগন্ধা মার্কেটে তার দোকান বিসমিল্লাহ্ জুয়েলার্স নামক স্বর্ণের দোকানে তালা দিয়ে জুম্মার নামাজ আদায় করতে যান। জুম্মার নামাজ আদায় শেষে মসজিদের সামনে রাস্তায় পেয়ারা কেনার সময় অজ্ঞাত এক ব্যক্তি আফজালকে জানান তার দোকানের সাটার ওঠানো। এই শুনে দ্রুত গিয়ে দেখেন তার দোকানের সাটারের তালা ভাঙা এবং দোকানের ভেতরে স্বর্ণের খালি বক্স এলোমেলোভাবে ছড়ানো-ছিটানো।দোকানের ভেতরে গ্লাসের শোকেজের তালা ভাঙা ছিল। দুপুর দেড়টা থেকে দুইটার মধ্যে অজ্ঞাতনামা পাঁচ থেকে সাতজন চোর বা চোরেরা ভুক্তভোগীর দোকানের তালা কেটে দোকানে প্রবেশ করে এবং সেখানে রাখা স্বর্ণের বিভিন্ন ধরনের ৪০ ভরি গহনা এবং ৫০ ভরি রুপার বিভিন্ন গহনা চুরি করে নিয়ে যায় উল্লেখ করে রূপনগর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী।

ডিএমপির এ কর্মকর্তা বলেন, ওই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের এই চক্রের বাকি পলাতকদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রেপ্তার দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করে রোববার সকালে আদালতে পাঠানো হয়।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।