স্কুল শিক্ষিকার নামে দেয়ালে অশ্লীল লিখন, প্রশাসনের ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস

১৭ আগস্ট ২০২২, ১:২৬:০৪

কামরুল হাসান নিরব, ফেনী থেকে: ফেনীর পরশুরাম উপজেলার কোলাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিলকিছ আক্তার তার বিদ্যালয়ের পরিবেশ সুন্দর রাখতে স্থানীয় স্কুল চত্ত্বরে একটি আম গাছ কর্তন করেন।এই আম গাছে স্থানীয় বখাটে মাদকাসক্তরা ছোট মেয়েদের ইভিটিজিং করতো এবং সিগারেটে ধোঁয়া ছুড়তো। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করায় ক্ষেপে উঠে স্থানীয় বখাটে চক্র।দেয়ালে লিখে অবিবেচ্য অশালীন গালাগাল।

স্কুলের আশেপাশে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, প্রধান শিক্ষক বিলকিছ আক্তার মঙ্গলবার সকালে বিদ্যালয়ে গিয়ে তাঁর নামে বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল ও আপত্তিকর লেখা দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন। বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সামছুন নাহার পাপিয়া, স্থানীয় কাউন্সিলর এনামুল হক এনাম, স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি বেলাল হোসেনকে অবহিত করেন তিনি। বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরাও এমন আপত্তিকর অশ্লীল ভাষা দেখে হতবাক হয়ে যান।

উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সামছুন নাহার পাপিয়া বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে পরশুরাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল বাশার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক, পরিচালনা কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন।

বিলকিছ আক্তার জানান, তিনি ২০১৫ সাল থেকে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। এই সময়ে তাঁর সঙ্গে কারও কোনো বিরোধের ঘটনা ঘটেনি। তবে বেশ কিছুদিন ধরে কিছু মাদকাসক্ত বিদ্যালয়ের ছাদের ওপর উঠে মাদক সেবন ও আড্ডা দিচ্ছিল। বিষয়টি স্থানীয় কাউন্সিলরকে জানালে তিনি বেশ কয়েকজনকে সতর্ক করেন। তবে এতেও ছাদে আড্ডা দেওয়া বন্ধ না হওয়ায় ছাদে ওঠার গাছের ডালপালা কেটে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়েই তাঁরা এই কাজ করছেন বলে তাঁর ধারণা।

পরশুরাম উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফাতেমা নাছরিন জানান, প্রধান শিক্ষকের বিষয়টি তিনি শুনেছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তিনি উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করেছেন।

পরশুরাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল বাশার বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে কোনো বখাটে মাদকাসক্তের কাজ হতে পারে। বিষয়টি একজন প্রধান শিক্ষকের জন্য অত্যন্ত অপমানজনক। তদন্ত করে অপরাধীকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা হবে।’ পরশুরাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম জানান, প্রধান শিক্ষকের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।