প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

জেনে নিন কতটা ‘শিক্ষিত’ বলিউড রাজা-রানীরা

০৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ ০৬:৩৮:১৯

স্কুল কেটে, কলেজ বাঙ্ক করে সিনেমা তো অনেকেই দেখেছেন৷ তাই না? সঙ্গে সঙ্গে এটা নিশ্চয়ই মনে হয়েছে যে, যাদের ছবি দেখার জন্য এমন স্কুল কলেজে ডুব দেওয়া, সেই ফিল্মস্টাররা পড়াশোনায় কেমন? তাঁরা পড়াশোনায় ভালো নাকি স্কুল-কলেজ ড্রপও আছেন কেউ কেউ!

বলিউডের যে কোনও আলোচনা বিগ-বি দিয়ে শুরু করাই ভালো৷ যতই মারকুটে, গালি দেওয়া অশিক্ষিত নায়কের ভূমিকায় তিনি অভিনয় করে থাকুন না কেন অমিতাভ বচ্চন কিন্ত্ত এখনও নায়কদের মধ্যে সবচেয়ে শিক্ষিত৷ তিনি নৈনিতালের শেরউড কলেজের স্নাতক৷ এরপর সায়েন্স, আর্টস দুটি বিভাগেই দিল্লির কিরোরী মল কলেজ থেকে ডিগ্রি আছে৷ অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্মানিক ডক্টরেটও রয়েছে তাঁর৷ তবে একা অমিতাভকে দেখে কিন্তু গোটা বলিউডকে ভেবে নেওয়া ভুল৷ ধরা যাক, আমির খানের কথাই৷ তিনি স্কুলে অত্যন্ত সাধারণ ছাত্র ছিলেন৷ স্কুলের পাঠ শেষ করে মুম্বইয়ের নারসি মনজি কলেজে ভর্তি হন ঠিকই, কিন্ত্ত ক’দিন ক্লাশ করেছেন তা হাতে গোনা যাবে৷ বেশিরভাগ সময়টা তিনি নাটক নিয়েই ব্যস্ত থাকতেন৷

আসা যাক কিং খানের কথায়৷ তিনি দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে হংসরাজ কলেজ থেকে অর্থনীতি নিয়ে স্নাতক হন৷ এরপর নয়াদিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস-কম নিয়ে পড়ার জন্য ভর্তি হন ঠিকই, কিন্ত্ত পড়া শেষ করতে পারলেন কোথায়! আর সলমন খান? তিনি তো কলেজ ড্রপ আউট! গোয়ালিয়রের সিন্ধিয়া স্কুলে কিছুদিন পড়াশোনা করেন৷ ছেড়ে এসে মুম্বইয়ের সেন্ট স্ট্যানিসলাস হাইস্কুলে ভর্তি হন৷ তারপর বান্দ্রার ন্যাশনাল কলেজে ভর্তি হন, কিন্ত্ত ওই পর্যন্তই!

খান পরবর্তীদের মধ্যে প্রথমেই মনে আসে হূতিক রোশনের কথা৷ তিনিও সাদামাটা ছাত্র৷ বম্বে স্কটিশ স্কুলে পড়াশোনার পর সিডেনহাম কলেজ থেকে কমার্সে স্নাতক হন৷

ওই বম্বে স্কটিশ স্কুলেরই ছাত্র জন আব্রাহামের পড়াশোনার গ্রাফ কিন্ত্ত অনেকখানি উপরের দিকে৷ তিনি জয় হিন্দ কলেজ থেকে ভালো নম্বর পেয়ে অর্থনীতিতে স্নাতক হন৷ এরপর নার্সি মনজি ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট কলেজ থেকে ম্যানেজমেন্ট ডিগ্রি পান৷ নায়ক হওয়ার আগে তিনি প্রফেশন্যাল মিডিয়া প্ল্যানারও ছিলেন৷

একই স্কুলের ছাত্র আরও একজন৷ তিনি রণবীর কাপুর৷ পড়াশোনায় তিনি সলমন-পন্থী৷ স্কুলের পর এইচ আর কলেজে ভর্তি হন কিন্ত্ত সে গণ্ডি পেরনোর গরজ কোথায়? বছর খানেক পর থেকেই কলেজ যাওয়া বন্ধ করে দেন৷ যোগ দেন স্কুল অব ভিজ্যুয়াল আর্টস অ্যান্ড লি স্ট্রাসবার্গ থিয়েটার অ্যান্ড ফিল্ম ইনস্টিটিউটে যাতায়াত শুরু করেন৷ ফিল্ম মেকিং এবং মেথড অ্যাক্টিংয়ে পাঠ নেওয়া শুরু করেন৷ ফারহান আখতার মুম্বইয়ের মানেকজি কাপুর স্কুলে পড়াশোনা করেছেন৷ এইচ আর কলেজ থেকে কমার্স নিয়ে গ্র্যাজুয়েশন করেছেন৷ তবে আহামরি কিছু রেজাল্ট নয়৷

এ বার একটু নায়িকাদের পড়াশোনা কদ্দূর সে কথা জেনে নেওয়া যাক (যাঁরা কিনা বহু টিন এজারের পড়াশোনা মাথায় ওঠার কারণ)! রণবীর তো তবু কলেজ ড্রপ আউট৷ তাঁর দিদি স্কুল ড্রপ আউট! বেশ নামজাদা ক্যাথিড্রাল অ্যান্ড জন ক্যানন স্কুলে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি৷ কিন্ত্ত ক্লাশ সিক্সের পরই পড়াশোনায় ইতি টানলেন৷

তবে করিশমাকে দেখে বলিউডের বাকি নায়িকাদের কোয়ালিফিকেশন সম্পর্কে কপালে ভাঁজ টানলে কিন্ত্ত চলবে না৷ মনে রাখতে হবে, মুম্বইতে গড় হিসাব করলে নায়কদের তুলনায় নায়িকারা অনেক বেশি শিক্ষিত৷ ছবিতে হিরোইন না হলেও তাঁদের অন্যান্য ক্ষেত্রে চোখ ধাঁধানো কেরিয়ার হতে পারতো৷

ধরা যাক, প্রীতি জিন্টার কথা৷ দেখতে গাবলি-বাবলি হলেও তাঁর পড়াশোনা অনেক৷ সিমলার সেন্ট বেডেস কলেজ থেকে ইংরাজিতে অনার্স করেন তিনি৷ এছাড়াও তিনি সাইকোলজিতে গ্র্যাজুয়েশন করেন৷ আর পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন করেন ক্রিমিন্যাল সাইকোলজিতে৷ আবার ‘রেস টু’-তে যতই চুপ করে থাকুন না কেন পড়াশোনায় দুর্দান্ত অমিশা প্যাটেলও৷ তিনি ক্যাথিড্রাল অ্যান্ড জন ক্যানন স্কুলে বরাবরই ‘হেড গার্ল’ ছিলেন৷ এরপর তিনি যান আমেরিকা৷ মেডফোর্ডে টাফস ইউনিভার্সিটি থেকে অর্থনীতিতে ডিগ্রি নেন৷ এরও পরে বস্টন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়ো জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়েও ডিগ্রি আছে তাঁর৷

পড়াশোনায় ভালো ছিলেন বিদ্যা বালনও৷ পর্দায় ‘ডার্টি পিকচার’-এর নায়িকা হলেও তিনি সোসিওলজি নিয়ে গ্র্যাজুয়েশন করেছেন মুম্বইয়ের সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ থেকে৷

পড়াশোনার রীতিমতো চোখ ধাঁধানো আর এক নায়িকা হলেন সোহা আলি খান৷ নবাব পরিবারের মেয়ে বলে পড়াশোনা না করে পায়ের উপর পা তুলে বসে থাকেননি৷ দিল্লির ব্রিটিশ স্কুল থেকে বিদ্যালয়ের পাঠ নেন৷ এরপর চলে যান অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়৷ ভূগোল নিয়ে পড়েন৷ এছাড়া লন্ডন স্কুল অব ইকনমিক্স অ্যান্ড পলিটিক্যাল সায়েন্স থেকেও একটা ডিগ্রি আছে তাঁর৷

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: