মেডিকেল হলের মালিকের বিরুদ্ধে শ্লীলতা হানীর অভিযোগ

২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ০২:৪৫:৪৪

শরীয়তপুর সদর উপজেলার আংগারিয়া বাজারের সুমন মেডিকেল হল এর মালিক রঘুনাথ পোদ্দার এর বিরুদ্ধে শ্লীলতা হানীর অভিযোগ উঠেছে। আজ সকাল ১১ টায় সুমন মেডিকেল হল এ ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দার এর চেম্বারে আংগারিয়া নিবাসী মোতাহার ছৈয়াল এর স্ত্রী প্রেসার মাপানোর জন্য চেম্বারে আসেন। কিন্তু ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দার চেম্বারে না থাকার কারণে তার বড় ভাই রঘুনাথ পোদ্দার ঐ রুগীর প্রেসার মাপার নাম করে তার শরীরে হাত দেয়। তাৎক্ষণিক ভাবে উক্ত রোগী প্রতিবাদ জানালে স্থানীয় লোকজন জড়ো হয়ে যায়। উপস্থিত লোকজন এবং ঔষধ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বিচারের দায়িত্ব নেন।

এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী মহিলার সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, আজ সকাল ১১ টার দিকে সুমন মেডিকেল হলে আমি প্রেসার মাপার জন্য যাই। ঐ সময় ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দার ছিলেন না। এই সুযোগে তার বড় ভাই রঘুনাথ পোদ্দার আমার প্রেসার মাপতে আসে। প্রেসার মাপার নাম করে জোর পূর্বক সে আমার শরীরে হাত দেয়। আমি তাৎক্ষনিক ভাবে প্রতিবাদ জানাই এবং এলাকার লোকজন এর বিচারের দায়িত্ব নিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েক জন বাজার ব্যবসায়ী বলেন, ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারের বড় ভাই রঘুনাথের নামে প্রায়ই এ ধরনের ঘটনা শুনি। এর বিচার হওয়া উচিত।

শরীয়তপুর ঔষধ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমি ঘটনা শুনে তাৎক্ষনিক ভাবে ঘটনা স্থলে যাই এবং এলাকার মুরুব্বিদের সাথে আলাপ করে আজ বিকেলে এ ব্যাপারে বসার কথা বলেছি।

ভূক্তভোগীর ছোট ভাই মনোয়ার হোসেন বলেন, আমার বোনকে রঘুনাথ প্রেসার মাপার কথা বলে শরীরে হাত দিয়েছে। আমি তার বিচার চাই। সঠিক বিচার না হলে শ্লীলতা হানীর মামলা করবো।

এ ব্যাপারে ডাঃ সুমন কুমার পোদ্দারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এটা তার (রঘুনাথ) এর ব্যাপার । এ ব্যাপারে আমাকে জড়ানো ঠিক হবেনা। কারণ আমি যেহেতু আমার কর্মস্থল শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ছিলাম। সেক্ষেত্রে আমার চেম্বারে কি ঘটছে আমি তা জানি না।

সুমন মেডিকেল হলের মালিক রঘুনাথ পোদ্দারের সাথে আলাপ কালে তিনি বলেন, সম্পূর্নটাই ষরযন্ত্র। এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি।

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: