জয়ন্ত শিরালী জয়

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

বশেমুরবিপ্রবি’র সহকারী রেজিস্ট্রারকে নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

   
প্রকাশিত: ৩:০৮ অপরাহ্ণ, ২৬ আগস্ট ২০২০

গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কম্পিউটার চুরির ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার ও সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক ভিপি নজরুল ইসলাম হিরার বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ১৯৮৮ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত নির্বাচিত ভিপি, জিএস, এজিএসসহ ছাত্র-ছাত্রী সংসদের সদস্যবৃন্দ। বুধবার (২৬ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র-ছাত্রী সংসদের সম্মেলনকক্ষে আয়োজিত এ সংবাদ-সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কলেজের সাবেক ভিপি ও আতিকুর রহমান পিটু।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সাম্প্রতিক বশেমুরবিপ্রবি’র কম্পিউটার চুরির ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ভিসি’র অনুমতি নিয়ে চোরচক্রকে ধরতে পুলিশকে সহযোগিতা করেন সহকারী রেজিস্ট্রার। স্বার্থান্বেষী একটি মহল নজরুল ইসলাম হিরার কর্মকান্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর, ভিত্তিহীন ও মনগড়া অপপ্রচার চালাচ্ছে। এহেন অপপ্রচারে সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র-ছাত্রী সংসদের সাবেক সদস্যবৃন্দ স্তম্ভিত ও ক্ষুব্ধ। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার চুরির সঙ্গে জড়িত ও প্রকৃত মদদদাতাদেরকে রক্ষাসহ প্রকৃত ঘটনাকে ধামাচাপা ও ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে যে অপপ্রয়াস চালানো হচ্ছে, সেজন্য সংবাদ-সম্মেলনের মাধ্যমে তারা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

কাদা ছোঁড়াছুড়ি না করে প্রকৃত ঘটনা উদ্ঘাটন হোক এমনটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, কম্পিউটার চুরির ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গঠিত ৭ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত-কমিটির একজন সদস্য হওয়া সত্ত্বেও কেন নজরুল ইসলামকে অব্যহতি দেয়া হলো, তার যুক্তিসঙ্গত কারণ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের ব্যাখ্যা করতে হবে।

সংবাদ-সম্মেলনে নজরুল ইসলাম হীরা বলেন, তদন্ত কমিটি থেকে তার অব্যহতি পত্রে স্পষ্ট কোন কারণ উল্লেখ ছিল না। চোর ধরার ব্যাপারে পুলিশকে সহায়তা করার জন্য এবং আসল অপরাধিকে আড়াল করে বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতেই তদন্ত কমিটি থেকে আমাকে অব্যহতি দেয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সরকারি বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক ভিপি এস এম মাহামুদ, গাজী সিহাবউদ্দিন, মোঃ আলিমুজ্জামান আলীম, মোঃ আব্দুল্লাহ আসিফ জামান (উপল) ও মোঃ শরিফুল ইসলাম, জিএস মোঃ মিজানুর রহমান মিজান, শেখ ইব্রাহীম খলিল, আল হোসাইন মামুন, নীহার কান্তি বিশ্বাস, এস এম মারুফ রাসেল, এজিএস শেখ মোঃ হুমায়ুন কবিরসহ ছাত্র-ছাত্রী সংসদের সাবেক সদস্যরা।

 

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: