প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সেই এমভি বে-ওয়ান প্রমোদতরী শোকজ

   
প্রকাশিত: ৩:৩০ অপরাহ্ণ, ২৩ জানুয়ারি ২০২১

ফুয়াদ মোহাম্মদ সবুজ, চট্টগ্রাম থেকে: বিলাসবহুল প্রমোদতরী ক্রুজশিপ এমভি বে-ওয়ান কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন নৌ পথে চলাচলের অনুমোদন নিয়ে অবৈধভাবে পতেঙ্গা-সেন্টমার্টিন যাতায়ত করার অভিযোগে পারমিটের শর্তভঙ্গ করায় বাংলাদেশ অভ্যান্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগ শোকজ করেছে জাহাজটির পরিচালানাধিন প্রতিষ্ঠান কর্ণফুলী শিপ বির্ল্ডাসকে।

অভিযোগ রয়েছে কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স নামের প্রতিষ্ঠানটি ক্রুজশিপ “এমভি বে-ওয়ান” ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েশন অব ক্লাসিফিকেশন সোসাইটিস’র নীতিমালা অনুযায়ী যে কোনো জাহাজের গড় আয়ু নির্ধারণ করা হয়েছে সর্বোচ্চ ২৫ বছর। চার বছর আগে আয়ুষ্কাল হারানো জাপানে তৈরিকৃত সালভিয়া মারুকে ঘষামাজা করে বিলাসবহুল প্রমোদতরী ‘বে ওয়ান ক্রুজ’ নাম দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ জাহাজটি নিয়ে ব্যবসা শুরু করছে। জাহাজটির বর্তমান বয়স ২৯ বছর, জাহাজটির লাইফ টাইম শেষ হয়েছে আর ৪ বছর আগে। যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। নৌ পরিবহন মন্ত্রাণলায় সূত্রে জানায় উক্ত জাহাজটি চলাচলে নৌ পথ নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়ার সম্ভাবনার পাশাপাশি বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড এমন কি কক্সবাজার থেকে মাদক ইয়াবা পাচারের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে সংস্থার পক্ষ থেকে জানায়।

জানা গেছে, ক্রুজশিপ এমভি বে-ওয়ান বাণিজ্যিকভাবে পতেঙ্গা ওয়াটার বাস টার্মিনাল থেকে সেন্টমার্টিনের সর্বনিম্ন ভাড়া (আসা-যাওয়া) তিন হাজার টাকা। সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা ভাড়ায় (আসা-যাওয়া) নির্ধারণ করা হয়েছে। এত টাকা ভাড়া দিতে হলে অবৈধরাই সেখানে ভ্রমন করবে বলে সুত্র জানায়। ভাড়ার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা নির্ধারণ করার কথা থাকলেও এই ক্ষেত্রে তাদের কোন পরামর্শ নেয়া হয়নি। গত ১৪ জানুয়ারি আইন ভঙ্গ করে চট্টগ্রাম থেকে সেন্টমার্টিন রুটে অবৈধভাবে বাণিজ্যিকভাবে যাত্রা শুরু করেন। নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপ পরিচালক (মেট্ট্রো) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত শোকজ প্রেরণ করেছে।

বিআইডাব্লিউটিএ চট্টগ্রাম বিভাগের উপ পরিচালক নয়ন শীল জানান, ক্রুজশিপ এমভি বে-ওয়ান সম্পূর্ণ অবৈধভাবে চলছে, তাদেরকে বারবার নিষেধ করা হলেও তারা আমাদের কথায় কর্ণপাত করেনি, বিষয়টি মন্ত্রনালয়কে জানানোর পর মন্ত্রনালয় জাহাজটি যারা পরিচালানা করেছে তাদেরকে শোকজ করেছে। যদি শোক-জের জবাব যথাযথ না হয় মন্ত্রণালয় জাহাজটির বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলেও তিনি জানান।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ অভ্যান্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, ক্রুজশিপ এমভি বে-ওয়ান রুটে জাহাজটিকে কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে চালাচলের অনুমতি নিয়ে অবৈধভাবে পতেঙ্গা-সেন্টমার্টিন যাতায়ত করায় বিষয়টি আমরা মন্ত্রণালয়ে রিপোর্ট করায় মন্ত্রণালয় থেকে শোকজ করা হয়েছে। শোকজের জবাবের কপি এখনো আমাদের হাতে আসেনি। জবাব দিতে না পারলে মমালা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে তিনি জানান।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: