যৌনকর্মীদের স্তনে বাসা বেঁধেছে মরণ ক্যানসার? সন্ধান দেবে এই অ্যাপস

   
প্রকাশিত: ৩:০৩ অপরাহ্ণ, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

যাকে পুঁজি করে ব্যবসা তাকেই শরীর থেকে বাদ দিতে হচ্ছে। ‘লাস্ট স্টেজ’ স্তন ক্যানসার থেকে বাঁচাতে পতিতাপল্লির পাশে ‘দিশা ফর ক্যানসার।’ আর পাঁচজন দ্বিধাহীনভাবে চিকিৎসকদের কাছে এলেও সমস্যা চেপেই থাকেন যৌনকর্মীরা। শেষ মুহূর্তে স্তন বাদ দেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না।

সাধারণত স্তনে শক্ত কোনও মাংসপিণ্ড দেখা দেওয়া, তাতে অল্প ব্যথা, এগুলোই স্তন ক্যানসারের প্রাথমিক লক্ষণ। উপসর্গ দেখা দেওয়ার পর দ্রুত চিকিৎসকদের কাছে গেলে সমস্যার সমাধান হয়। কিন্তু যৌনকর্মীরা সাধারণত ডাক্তারদের কাছে যান না। তাই তাঁদের কথা ভেবে ইতিমধ্যেই ভারতে একটি অ্যাপের পরিকল্পনা করেছে ‘দিশা ফর ক্যানসার।’ চিকিৎসক অগ্নিমিতা গিরি সরকার জানিয়েছেন, একটি মোবাইল অ্যাপের প্রাথমিক পরিকল্পনা করা হয়েছে। যৌনকর্মীরা চিকিৎসকদের কাছে আসতে চান না।

তাঁদের বলা হয়েছে, স্তনে অস্বাভাবিক কোনও ‘গ্রোথ’ অথবা মাংসপিণ্ড হয়েছে কি না তা যাচাই করতে নিজেরাই আয়নার সামনে স্তন পরীক্ষা করে দেখবেন। প্রতি মাসে একবার এই পরীক্ষা করতে হবে। কী উপায়ে পরীক্ষা করতে হবে তার সম্পূর্ণ বিবরণ থাকবে নয়া অ্যাপে। কোনও মাসে ভুলে গেলেই রিমাইন্ডার অ্যালার্ম বেজে উঠবে। সম্পূর্ণ অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে স্মার্টফোনে।

ভারতের কলকাতা জুড়ে প্রায় ৬৫ হাজার রেজিস্টার্ড যৌনকর্মী রয়েছেন। সোনাগাছিতে এমন যৌনকর্মীর সংখ্যা ১২ হাজার। লকডাউনের সময় থেকে এদের সকলের জন্যই শুরু হয়েছিল অনলাইনে স্তন ক্যানসার সচেতনতার পাঠ। সহযোগিতায় দুর্বার। শুধু সোনাগাছি নয়, কালীঘাট, বউবাজার, খিদিরপুরের যৌনকর্মীরাও অংশ নিয়েছিলেন এই অনুষ্ঠানে। শুধুমাত্র যৌনকর্মীদের স্তন ক্যানসার এবং ওভারিয়ান ক্যানসার ঠেকানোর এমন পাঠ পূর্ব ভারতে প্রথম।

ইতিমধ্যেই ইংল্যান্ডের অ্যাসোসিয়েশন অফ ব্রেস্ট সার্জারিতে জমা পড়েছে এই প্রোজেক্টের খসড়া। সম্প্রতি ৪ ফেব্রুয়ারি সোনাগাছিতে এমন একটি শিবিরের আয়োজন হয়। যার ফলাফল, সোনাগাছির এক যৌনকর্মীর দেহে ধরা পড়েছে স্তন ক্যানসারের বীজ। আরও একজন স্বীকার করেছেন, তাঁর স্তনে মাংসপিণ্ড দেখা দিয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাঁর বায়োপসি করা হবে শীঘ্রই।

স্তনের ছোট্ট ফুসকুড়ি বাড়তে বাড়তে শেষ পর্যায়ে পৌঁছে যায়। একটা সময় স্তন বাদ দেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না। ডা. অগ্নিমিতা গিরি সরকার জানিয়েছেন, স্তনে টিউমারের মতো শক্ত কিছু অনুভব করা, অল্প অল্প ব্যথা, কখনও স্তন থেকে পুঁজের মতো জিনিস বার হতে থাকা, এগুলো স্তন ক্যানসারের লক্ষণ। যা এখন অনেক যৌনকর্মীর মধ্যেই ছেয়ে গিয়েছে। দেহ ব্যবসায়ীরা স্তন বাদ দেওয়ার পর পেশা সংকটে পড়েন। তাঁদের জন্যেই সচেতনতা শিবির।স্তন পরীক্ষা না করলেই বাজবে ‘রিমাইন্ডার অ্যালার্ম’ক্যানসার সচেতনতায় যৌনকর্মীদের জন্য নয়া অ্যাপ।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: