প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

টেস্টে ৩১২ রানে এগিয়ে তৃতীয় দিন শেষ করল বাংলাদেশ

   
প্রকাশিত: ৯:০৬ অপরাহ্ণ, ২৩ এপ্রিল ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ক্যান্ডির পাল্লেকেলের ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে তৃতীয় দিন শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ২২৯ রান। দিনশেষে বাংলাদেশের চেয়ে এখনও ৩১২ রান পিছিয়ে আছে স্বাগতিকরা। ম্যাচের বাকি আরও দুই দিন। ব্যাটিং স্বর্গ পাল্লেকেলের উইকেটে শেষ বেলায় স্পিন ধরায় কিছুটা সুবিধা পেতে টাইগার স্পিনাররা। বাংলাদেশের জন্য একটা আশার ব্যাপার হলো, ব্যাটিং স্বর্গ পাল্লেকেলের উইকেটে আজ শেষ বেলায় কিছুটা হলেও স্পিন ধরেছে।

বাংলাদেশের ৫৪১ রানের পাল্টা জবাবে লঙ্কানদের শুরুটা দারুণ হয়েছে। তাদের ওপেনিং জুটির স্থায়িত্ব হয়েছে ৩৯ ওভার। দুই ওপেনার অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে আর লাহিরু থিরিমান্নে গড়েছেন ১১৪ রানের জুটি। অবশেষে মেহেদি হাসান মিরাজের বলে থিরিমান্নে লেগ বিফোর উইকেটের ফাঁদে পড়েন। রিভিউ নিয়েও কোনো লাভ হয়নি। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে তার সংগ্রহ ১২৫ বলে ৮ চারে ৫৮ রান। টাইগারদের দ্বিতীয় ব্রেক থ্রু এলো পেসারদের পক্ষ থেকে। মেহেদী হাসান মিরাজ বাংলাদেশকে ব্রেক থ্রু এনে দেওয়ার পর শ্রীলঙ্কার রানের গতি অনেকটাই কমে আসে। তারপরও দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে যোগ হয় ৪৩ রান।

অবশেষে ওশাদা ফার্নান্দোকে (২০) বিদায় করে এই জুটি ভাঙলেন তাসকিন আহমেদ। তাসকিনের ফুল লেন্থের বল লেগ সাইড দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার পথে ওশাদার ব্যাট এবং প্যাড ছুঁয়ে যায়। বাঁদিকে অনেকটা লাফিয়ে বল গ্লাভসবন্দি করেন উইকেটরক্ষক লিটন দাস। ওশাদার বিদায়ের পর ক্রিজে আসা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস দ্রুত রান তোলার দিকে মনোযোগ দেন। অধিনায়কের সঙ্গে ৩৩ রানের জুটিও গড়েন। কিন্তু এরপর তাইজুলের ঘূর্ণিতে পরাস্ত হন তিনি।

বোল্ড হয়ে বিদায় নেন ২৫ রানে। তবে করুণারত্নে হাল ছাড়েননি। ধনঞ্জয়া ডি ডিলভাকে সঙ্গী করে লড়াই চালিয়ে গেছেন দিনের শেষ পর্যন্ত। অবিচ্ছিন্ন এই জুটিই টাইগারদের গলার কাঁটা হয়ে রইলো।

এর আগে ৪ উইকেটে ৪৭৪ রান নিয়ে খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত ব্যাট করে ফিফটি তুলে নেন আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। লিটন ৫০ রান করে আউট হয়ে গেলেও ৬৮ রানে অপরাজিত থাকেন মুশফিক। দারুণ এক ইনিংস খেলার পথে তামিম ইকবালকে ছাড়িয়ে টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের জার্সিতে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড পুনরুদ্ধার করেছেন এই ডানহাতি।

৭৩তম টেস্ট ম্যাচ খেলতে নামা মুশি এখন পর্যন্ত ৪৬০৫ রান করেছেন। দুইয়ে নেমে যাওয়া তামিমের রানসংখ্যা ৪৫৯৮। বাঁহাতি এই ওপেনার খেলছেন ক্যারিয়ারের ৬৩তম টেস্ট। চলতি টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৯০ রান করে মুশিকে ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন তামিম। পরে তাকে ছাড়িয়ে যান মুশি।

উল্লেখ্য, নিজেদের ইতিহাসে এর চেয়ে বেশি ওভার মাত্র একবারই খেলতে পেরেছে বাংলাদেশ। ২০১৩ সালের শ্রীলঙ্কা সফরে গল টেস্টে ১৯৬ ওভার খেলেছিল মুশফিকুর রহীমের দল। সেই ইনিংসে নিজেদের ইতিহাসের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ৬৩৮ রানের রেকর্ড গড়ে বাংলাদেশ।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: