ডিএসইতে গত ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন

   
প্রকাশিত: ৯:৩৪ অপরাহ্ণ, ৯ জুন ২০২১

আবারও রেকর্ড লেনদেন হলো দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)। বুধবার (৯ জুন) দিনশেষে ডিএসইতে ২ হাজার ৭০০ কোটি ৫৫ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এটি পুঁজিবাজারের ইতিহাসে তৃতীয় সর্বোচ্চ আর্থিক লেনদেন এবং আগের দিনের চেয়ে ৬৩৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা বেশি। পাশাপাশি আগের সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে একদিনে সর্বোচ্চ আর্থিক লেনদেন। এর আগে ২০১০ সালের ৬ ডিসেম্বর ডিএসইতে আজকের চেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছিল। ওইদিন ডিএসইতে লেনদেন হয় ২ হাজার ৭১০ কোটি টাকা।

এদিন ডিএসইর লেনদেন ২৭০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। যা সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, বুধবার(৮ জুন) ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৩১ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৫৫ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইর শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে যথাক্রমে ১২৯৬ ও ২২০২ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

বুধবার (৮ জুন) ডিএসইতে দুই হাজার ৭০০ কোটি ৫ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। যা সাড়ে ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন। এর আগে ২০১০ সালের ৬ ডিসেম্বর লেনদেন হয়েছিল দুই হাজার ৭০০ কোটি ১০ লাখ টাকা। বুধবার আগের কার্যদিবসের চেয়ে ডিএসইতে ৬৩৫ কোটি টাকার লেনদেন বেড়েছে। আগের দিন ডিএসইতে দুই হাজার ৬৫ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছিল।

বুধবার ডিএসইতে ৩৬৯টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ২০৮টি কোম্পানি কমেছে ১২৪টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দর।

দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ৩০৯টি কোম্পানির ২ কোটি ৯৯ লাখ ৫১ হাজার ৯৭৮টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়েছে। লেনদেন হওয়া এসব কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৭৮টির, কমেছে ৯৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৩টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। দিনশেষে সিএসইতে ৭৬ কোটি ৫২ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৮৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। এদিন সিএসইর প্রধান সূচক আগের দিনের চেয়ে ৯০ পয়েন্ট বেড়ে ১৭ হাজার ৫২১ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

লেনদেন বৃদ্ধির পাশাপাশি সূচক বেড়েছে ডিএসইতে। ডিএসইএক্স ৩১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬ হাজার ৫৫ পয়েন্টে। ডিএসইতে আজ হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়্যাল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ২০৮ টির, কমেছে ১২৪টির আর অপরিবর্তিত ছিলো ৩৭টির দাম।

২০১০ সালের ডিসেম্বরে বড় ধরনের ধস নামে শেয়ারবাজারে। সূচক কমার পাশাপাশি লেনদেনও কমে ব্যাপকভাবে। তবে চলতি বছরে আবারও লেনদেনে গতি ফিরেছে ডিএসইতে।

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: