মোঃ আশরাফুল আলম

বশেমুরবিপ্রবি (BSMRSTU) প্রতিনিধি

বশেমুরবিপ্রবি’তে অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের বাড়লো মেয়াদ

   
প্রকাশিত: ৯:৫৭ অপরাহ্ণ, ৩০ জুলাই ২০২১

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি) অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের মেয়াদ আবারো দেড় বছর বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর আগে প্রকল্পটি ২০২১ সালের জুনের মধ্যে শেষ করার কথা ছিলো। বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রকল্পের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক তুহিন মাহমুদ বলেন, “আমাদের প্রকল্পটি ২০২০ সালের জুনের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে দেশের সকল প্রকল্পের সাথে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পেরও মেয়াদ এক বছর অর্থাৎ ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছিলো। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতায় এই সময়ের মধ্যে কাজ শেষ না হওয়ায় আমরা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পটির মেয়াদ আরও দেড় বছর বৃদ্ধি করার আবেদন জানাই এবং সম্প্রতি পরিকল্পনা মন্ত্রনালয় ও আইএমইডি প্রকল্পটির মেয়াদ দেড় বছর বৃদ্ধি করে।”

এসময় তিনি আরও বলেন, “প্রকল্পটির বর্ধিত মেয়াদ ২০২২ এর ডিসেম্বরে শেষ হবে। আশা করছি এই সময়ের মধ্যেই আমরা কাজ শেষ করতে পারবো। ৫ আগস্টের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু হলে আমরা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের টেন্ডার প্রকাশ করবো এবং যে সকল অবকাঠামোর নির্মাণ কাজ এখনও শুরু হয়নি সেগুলোর নির্মাণ কাজ দ্রুত শুরু করার উদ্যোগ নিবো।” বর্তমান কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে তুহিন মাহমুদ বলেন, “আমাদের পূর্বে বাজেট সংকট থাকলেও এখন আর বাজেট সংকট নেই। তবে লকডাউনের কারণে বর্তমানে কাজ বন্ধ রয়েছে। সবকিছু স্বাভাবিক হলে আমরা শীঘ্রই চলমান কাজগুলো শেষ করতে পারবো৷ কিন্তু লকডাউন আরও বৃদ্ধি পেলে আমাদের জন্য নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করা কঠিন হবে।”

এদিকে, আবারও প্রকল্পের সময়সীমা বৃদ্ধি পাওয়ায় অনেকটাই হতাশা প্রকাশ করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আইন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী  উজ্জ্বল মণ্ডল জানান, “বশেমুরবিপ্রবিতে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের মেয়াদ বৃদ্ধি করা, কাজ বন্ধ থাকা নিয়ে একজন শিক্ষার্থী হিসেবে অত্যন্ত উদ্বেগ ও হতাশা প্রকাশ করছি! কারণ সরকারের অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ করোনা পরিস্থিতিতেও দ্রুত সম্পন্ন হচ্ছে, এমনকি অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও কাজ চলছে অথচ বঙ্গবন্ধুর পূণ্যভূমিতে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ অত্যন্ত ধীরগতিতে আগাচ্ছে, অনেকসময় পুরোপুরি বন্ধ থাকছে।

একটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় শুধু-কেবল ইট-পাথরের তৈরি ক্লাসরুমে জ্ঞান অর্জনের জায়গা নয় বরং মূল্যবোধ সৃষ্টি ও মনুষ্যত্ব বিকাশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ , একে অপরের থেকে শেখা অথবা শিখিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি সুস্থ সংস্কৃতি চর্চার উর্বর ভূমি। অথচ এত বছরেও বশেমুরবিপ্রবি প্রশাসন শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামোগত সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে পারেনি। তাই আমরা চাই বারবার প্রকল্পের সময় বৃদ্ধি না করে দ্রুত কাজ শেষ করা হোক।”

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আঞ্জুমান আরা আঁখি বলেন, “এটা হতাশার বিষয় যে এতদিনেও আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের তেমন কোনো উন্নয়ন হয়নি। দশ বছর পরেও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবন, একাডেমিক ভবন আর হল ব্যতিত কোনো উল্লেখযোগ্য অবকাঠামো নেই। বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল, টিএসসি, অডিটোরিয়ামসহ অনেককিছু নির্মাণের কথা থাকলেও বারবার প্রকল্পের সময় বৃদ্ধি করে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রহসন করা হচ্ছে৷ তাই আমরা চাই চলমান প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করে নতুন উনয়ন প্রকল্প শুরু করা হোক এবং সকল দিক থেকে বশেমুরবিপ্রবি বাংলাদেশের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে উঠুক।”

উল্লেখ্য, বশেমুরবিপ্রবি অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পটির অধীনে একাডেমিক ভবন, ছাত্র হল, ছাত্রী হল, বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন গেট, বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল, শহীদ মিনার, অডিটোসহ বেশ কিছু অবকাঠামো নির্মাণ করা হবে। এই প্রকল্পটির মেয়াদ ২০১৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়েছিলো এবং ২০১৮ সালে সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু পরবর্তীতে প্রকল্পটি রিভাইজড হলে এর মেয়াদ ২০২০ এর জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছিলো।

ফরমান/মস

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: