প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সোহাগ হোসেন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

একই রাতে স্ত্রীর উপর অভিমানে দুই ব্যক্তির আত্নহত্যা

   
প্রকাশিত: ৮:০২ অপরাহ্ণ, ২৪ জুলাই ২০২২

সাতক্ষীরা সদরের থানাঘাটা এলাকায় স্ত্রীর প্রতি অভিমান করে একই রাতে দুই ব্যক্তির আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। রোববার (২৪ জুলাই) ভোররাতে উভয়ই নিজ ঘরে গলায় রশি দিয়ে আত্নহত্যা করেন তারা। মৃতরা হলেন, থানাঘাটা গ্রামের শাহাজাহান আলীর ছেলে আব্দুল খালেক (২৮) ও মৃত. ইউনুচ হাওলাদারের ছেলে নুরুল ইসলাম বাবু (৪৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) স.ম কাইয়ুম। তিনি জানান, পৃথক দুইজন আত্নহত্যা করেছেন। নুরুল ইসলামের স্ত্রী বিদেশ যেতে যান। এতে বাঁধা দেন তিনি। তবে স্ত্রী কথা না শোনায় তিনি আত্নহত্যা করেছেন। আব্দুল খালেক কি কারণে আত্নহত্যা করেছেন সেটি এখনো জানা যায়নি, অনুসন্ধান করছি। তবে দুটি ঘটনায় প্রাথমিকভাবে ধারণা বরা হচ্ছে, তারা আত্নহত্যা করেছেন।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, নুরুল ইসলাম বাবুর স্ত্রী নাছিমা বেগম সৌদি আরব যেতে চান। এতে বাঁধা দেন স্বামী নুরুল। তবে বাঁধা উপেক্ষা করে নাছিমা বেগম মেডিকেল রিপোর্ট করার জন্য শনিবার (২৩ জুলাই) ঢাকাতে গিয়েছেন। অভিমানে রাতে ঘরে আত্নহত্যা করেছেন নুরুল ইসলাম বাবু।

নাছিমা বেগমের ভাই রফিকুল ইসলাম জানান, নাছিমা সৌদি আরব যাওয়ার জন্য মেডিকেল করতে ঢাকাতে গেছে। এখন বাড়িতে ফিরছে। রাতে দুলাভাই কেন আত্নহত্যা করেছেন সেটি জানি না।

অন্যদিকে, আব্দুল খালেকের প্রতিবেশী হবি নামের এক ব্যক্তি গত ২০ দিন আগে আত্নহত্যা করেন। ভয় পেয়ে আব্দুল খালেকের স্ত্রী শ্বশুর বাড়ি চলে যান। শনিবার (২৩ জুলাই) দুপুরের দিকে বাড়িতে আসেন খালেকের স্ত্রী। সন্ধ্যায় আবার পিত্রালয়ে চলে যান। অনেক ডাকাডাকি করলেও খালেকের স্ত্রী বাড়িতে ফেরেননি। সেই অভিমানে রাতে নিজ ঘরে গলায় রশি দিয়ে আত্নহত্যা করেন আব্দুল খালেক।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: