প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

নুরুল আমিন

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

রাঙামাটি শহরে গুরত্বপূর্ণ সড়কে ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণের দাবি

   
প্রকাশিত: ১২:২৩ অপরাহ্ণ, ২৬ জুলাই ২০২২

রাঙ্গামাটি শহর এখন অতীতের চেয়ে অনেক বেশি একটি ব্যস্ততম শহরে পরিণত হয়েছে। অটোরিক্সা ও বিভিন্ন যানবাহন বেড়ে যাওয়ায় সড়ক পারাপারে হিমশিম খাচ্ছে পথচারিরা। সড়কের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ের মধ্যে রয়েছে বনরূপা চত্ত্বর, জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে, রিজার্ভবাজার, তবলছড়ি ও কলেজ গেইটসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সড়ক পারাপারে প্রতিনিয়ত ভোগান্তিতে পড়ছেন।

কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী অনিমেষ চাকমা ও মৃত্তিকা চাকমা জানান, রাঙ্গামাটি শহরের ব্যবসায়ের প্রাণকেন্দ্র হলো বনরূপা চত্ত্বর। এ চত্ত্বরের প্রধান সড়ক থেকে একদিকে বয়ে গেছে বৃহত্তর বনরূপা বাজার এবং অন্যদিকে বয়ে গেছে ফরেষ্টকলোনি রোড। প্রধান সড়কের চর্তুরমূখী থেকে যানবাহন চলাচলের কারণে পথচারীদের প্রতিনিয়ত ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

এছাড়াও প্রতিনিয়ত শহরের বনরূপা চত্ত্বরে যানজট লেগেই থাকে। তারা আরো জানান, বনরূপা ছাড়া কলেজ গেইট, ডিসি অফিসের সামনে সহ সড়কের বিভিন্ন স্থানে যানজট লেগেই থাকে। সুতারাং ঐসব স্থানে ফুটওভার ব্রীজ নিমার্ণ করার দাবি জানান তারা। পথচারী মোঃ সালাউদ্দিন জানান, বিগত ৬ থেকে ৭ বছর আগে এ সড়কে খুব সহজেই পারাপার হওয়া যেতো। এখন সড়ক অনুযায়ী যানবাহন বেড়ে যাওয়ায় সড়ক পারাপার হতে এক থেকে দুই মিনিট সময় লাগে। তাই শহরের গুরুত্বপূর্ণ বনরূপা চত্ত্বরে একটি ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ করার দাবি জানান তিনি।

আরেক পথচারী আশিষ দেব জানান, রাঙ্গামাটি শহরের ফুটপাতের উভয় পাশে ভাসমান দোকানে ভরপুর। এছাড়াও শহরে নিত্য নতুন অটোরিক্সা বেড়ে যাওয়ায় এ চত্ত্বরে যানজট লেগেই থাকে। ফলে চলাচল করতে খুবই কষ্ট হয় এবং সড়ক পারাপার করতে হয় মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে। তিনি আরো জানান, এ চত্ত্বরে একটি ট্রাফিক পুলিশের চেকপোষ্ট রয়েছে। তবে তাদের তেমন কোন ভূমিকা চোখে পড়ে না। যদি কোন সরকারের বা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা রাঙ্গামাটিতে আসেন, তাহলে তখন তাদের ভূমিকা চোখে পড়ে।

সুতারাং, শহরের বনরূপা চত্ত্বর নয়, জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে, তবলছড়ি, কলেজ গেইট, রির্জাভবাজারসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মানুষের নিরাপত্তার জন্য ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণ এবং ট্রাফিক পুলিশের তৎপরতা বাড়ানোর জন্য জোর দাবি জানান তিনি। সমাজ সেবক ও রাঙ্গামাটি নিরাপদ সড়ক চাই কমিটির সভাপতি নুরুল আবছার জানান, রাঙ্গামাটিতে বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং এর পাশাপাশি মানুষও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে মানুষ প্রতিনিয়ত মৃত্যুর ঝুঁকি

নিয়ে শহরের বিভিন্ন সড়কের পয়েন্টে রাস্তা পারাপার হচ্ছে। এছাড়াও বিভিন্ন বিদ্যালয় এবং কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের রাস্তা পারাপার হতে অসুবিধায় পড়তে হয়। যার কারণে বনরূপা, জেলা প্রশাসনের কার্যালয় সহ শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কের পয়েন্টে ফুটওভার ব্রীজ নির্মাণের দাবি জানান তিনি।

রাঙ্গামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল জানান, রাঙ্গামাটি শহরের যানজট বেড়ে যাওয়ার কারণে বনরূপা, কোর্টবিল্ডি এলাকা, কলেজ গেইটসহ বিভিন্ন এলাকায় জনসাধারণের চলাচলের ভোগান্তি সৃষ্টি হচ্ছে। তাই জনসাধারণ চলাচলে সড়কে নিরাপত্তার প্রয়োজন রয়েছে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: