প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

নাইমুর রহমান

নাটোর প্রতিনিধি

তরকারিতে তেল বেশি দেওয়ায় স্ত্রীর আঙুল কর্তন, স্বামী ও ভাই গ্রেফতার

   
প্রকাশিত: ১:০১ অপরাহ্ণ, ২৭ জুলাই ২০২২

নাটোরে তরকারিতে তেল বেশি দেওয়ার স্ত্রী মুক্তি বেগমের (৩০) হাতের সাতটি আঙুল কাটার ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী আব্দুল হাইকে (৪৫) ও মামতো ভাই রাব্বি মিয়াকে(২৬) গ্রেফতার করেছে র্যাব। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে সদর উপজেলার হালসা ইউনিয়নের সুলতানপুরে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বুধবার (২৭ জুলাই) সকালে ভুক্তভোগী ভাই মজিবুর রহমান তার বোনের স্বামী আব্দুল হাই’র বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। আহত মুক্তি বেগম বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ১৩ বছর আগে সদর উপজেলার বড় হরিশপুর এলাকার মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে আব্দুল হাই’র সঙ্গে সদর উপজেলার আটঘরিয়া গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদিনের মেয়ে মুক্তি বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের বৃষ্টি (১১) ও স্বাধীন (৮) নামের দুই ছেলে-মেয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে আব্দুল হাই তার স্ত্রী মুক্তি বেগমের ওপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। সন্তানদের মুখের দিকে তাকিয়ে তার স্ত্রী সব সহ্য করে চলছিল। গত রোববার দুপুরে তরকারি রান্না করার সময় তেল বেশি দেওয়ার বিষয়টি মুক্তির মামাতো ভাই আব্দুল হাইকে জানান।

এতে আব্দুল হাই ক্ষিপ্ত হয়ে ধারালো হাসুয়া দিয়ে স্ত্রী মুক্তি বেগমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে দুই হাতের ৭টি আঙুল কেটে দেয়। এসময় মুখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। পরে মঙ্গলবার রাতে র্যাব অভিযান চালিয়ে সদর উপজেলার হালসা ইউনিয়নের সুলতানপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করেন।

নাটোর র্যাব ক্যাম্পের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরহাদ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত গ্রেফতার করা হয়েছে। রাব্বি ও আব্দুল হাই ঢাকায় পালানোর পরিকল্পনা করেছিলেন। তাদের থানার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: