আরিফ জাওয়াদ

ঢাবি প্রতিনিধি

পঞ্চগড়ে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার দাবি

   
প্রকাশিত: ৬:১৮ অপরাহ্ণ, ৩০ জুলাই ২০২২

দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে জনদুর্ভোগ লাঘব ও মানুষের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার দাবিতে মানববন্ধন করেছে ঢাকাস্থ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত পঞ্চগড়ের শিক্ষার্থীরা। শনিবার (৩০ জুলাই) রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ঢাকা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অফ পঞ্চগড় (ডিইউসেপের) সভাপতি রিফা জাকিয়ার সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক দীপম সাহার সঞ্চলনায় এই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে মাস্টার দা’ সূর্য হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিয়াম রহমান বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে ভৌগোলিকভাবে শক্ত অবস্থানে রয়েছে হিমালয় কন্যা পঞ্চগড়। শিক্ষা ও স্বাস্থ্য দিকটি আরো বেশি এগিয়ে যাবে, যদি পঞ্চগড়ে একটি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল স্থাপিত হয়। তাহলে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোও স্বাস্থ্য খাতে কয়েক ধাপ এগিয়ে যাবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, পঞ্চগড়ের সাথে সার্কভুক্ত দেশগুলোর একটি সংযোগ রয়েছে। উত্তরবঙ্গের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের অনুপাত বেশ ভালো, যা বর্তমানে দেশসেরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও নেই। কারণ সেখান দিয়ে প্রতিবেশী দেশ ভারত, নেপাল, ভুটানসহ চীনের শিক্ষার্থীরা সহজেই আসতে পারছে। পঞ্চগড়ে একটি মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠিত হলে সার্কভুক্ত দেশগুলোর শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশে পড়ার সুযোগ পাবে। তার থেকেও বড় সুবিধা হলো, এলাকার মানুষ পরিপূর্ণ চিকিৎসাসেবা নিতে পারবে।

পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য মাজহারুল হক প্রধান বলেন, পঞ্চগড়ে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার দাবি নতুন কিছু নয়। অনেক আগে থেকেই এই দাবি উত্থাপন করে আসছি। আমি জাতীয় সংসদে প্রদানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে এই দাবির কথা উত্থাপন করেছি। কিন্তু সেটা বাস্তবায়ন হচ্ছে না। বর্তমানে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালটি ২৫০ শয্যাবিশিষ্টি। আর একটি মেডিকেকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য ২৫০টি বেড হলেই সেটা প্রতিষ্ঠা করা যায়। সুচিকিৎসার জন্য পঞ্চগড়বাসীকে পদে পদে ধুকতে হচ্ছে এখনো।

পঞ্চগড় জেলা সমিতির সভাপতি মাহবুবুর রহমান ফারুকি বলেন, পঞ্চগড়ে একটি মেডিকেল প্রতিষ্ঠিত হলে সার্কভুক্ত দেশগুলোর শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশে পড়ার সুযোগ পাবে। তার থেকেও বড় সুবিধা হলো, ওই এলাকার মানুষেরা পরিপূর্ণ চিকিৎসা সেবা নিতে পারবে। আমরা চাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এই দিকে সুনজর দেবেন।

এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, ঢাকা কলেজ, তিতুমীর কলেজ ছাত্রকল্যাণ সমিতির নেতারা সহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: