প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

হাসান আল সাকিব

রংপুর প্রতিনিধি

৬ বছরেও শেষ হয়নি প্রধান শিক্ষকের ৪ মাসের ছুটি

   
প্রকাশিত: ১০:২০ অপরাহ্ণ, ১ আগস্ট ২০২২

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় চার মাসের ছুটি নিয়ে ছয় বছর ধরে অনুপস্থিত উপজেলার মর্ণেয়া ইউনিয়নের লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমা খাতুন। দীর্ঘদিন ধরে অনুপস্থিত থেকেও চাকরিতে বহাল রয়েছেন তিনি। দীর্ঘদিন প্রধান শিক্ষক অনুপস্থিত থাকায় বিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম ভেঙে পড়েছে।এদিকে চার মাসের ছুটি নিয়ে ছয় বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা প্রধান শিক্ষক নাজমা খাতুনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বিভাগীয় শিক্ষা অধিদপ্তর।

রংপুর বিভাগীয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মুজাহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত গত ২০ জুলাই ইস্যু করা কারণ দর্শানো ওই নোটিশে বিধিমালা অনুযায়ী কেন চাকরি থেকে বরখাস্ত করা বা যথোপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে না তা চিঠি প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রধান শিক্ষক নাজমা খাতুনকে জবাব দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য ব্যক্তিগত শুনানি দিতে ইচ্ছুক হলে তা জবাবে উল্লেখ করার জন্য বলা হয়েছে। কারণ দর্শানো ওই নোটিশটি ২৬ জুলাই (মঙ্গলবার) ই-মেইলে পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাগমা সিলভিয়া খান। তিনি সোমবার (১ আগস্ট) দুপুরে বলেন, চিঠি পাওয়ার পর অভিযুক্ত নাজমা খাতুনের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। ২৭ জুলাই নাজমা খাতুনের শ্বশুর আজিজুল ইসলাম অফিসে এসে সেই চিঠি নিয়ে গেছেন।

জানা যায়, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে গঙ্গাচড়া উপজেলার মর্ণেয়া ইউনিয়নের লাখেরাজটারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন নাজমা খাতুন। যোগদানের দেড় বছর পর চিকিৎসার জন্য ২০১৬ সালের ১২ জুলাই দুই মাসের ছুটি নিয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী স্বামীর কাছে যান। সেখানে থাকা অবস্থায় তিনি আরও দুমাসের ছুটি বাড়িয়ে নেন। এরপর তার ছুটি শেষ হলেও তিনি বিদ্যালয়ে আসেননি এবং ছুটিও নেননি। দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থেকেও তিনি চাকরিতে বহাল থাকেন।

নাঈম/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: