প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

ঘাটাইলে মানববন্ধনে চেয়ারম্যানের হামলা, পুলিশের গুলি

   
প্রকাশিত: ৯:২৯ পূর্বাহ্ণ, ৫ আগস্ট ২০২২

শফিকুল ইসলাম, ঘাটাইল থেকে: ঘাটাইলে সাগরদিঘি ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধনে হামলার অভিযোগ এলাকাবাসীর। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন দুইজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার (৪ আগষ্ট) উপজেলা সদরের সাগরদিঘি চৌরাস্তা মোড়ে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হেকমত সিকদারের নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মানববন্ধনের আয়োজন করে এলাকাবাসী। এতে শত শত নারী পুরুষ মানববন্ধনে অংশ নেয়।

ঘাটাইল থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আজহারুল ইসলাম সরকার বিডি২৪লাইভকে বলেন, চেয়ারম্যান হেকমত সিকদারের নানা অপকর্মের কারণে এলাকার মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। তারা বিভিন্ন দুর্নীতি ও হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধনের আয়োজন করে। চেয়ারম্যান হেকমত সিকদারের নেতৃত্বে মানববন্ধনে হামলা করা হয়। এতে উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পালটা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে ।

সাগরদিঘি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক জিন্নাত আলী জানান, চেয়ারম্যান হেকমত আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নাই। রেশন কার্ড দেয়ার নামে এলাকার সাড়ে ৪ হাজার লোকের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা নিয়েছে। এছাড়া শিক্ষক নিয়োগের নামে টাকা, চাঁদাবাজি অর্থ আত্মসাৎ ছাড়া নানা অপকর্মে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। ফলে ভুক্তভোগীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে মানববন্ধন করে। এমন সময় চেয়ারম্যান হেকমতসহ বহিরাগত আরও অনেকে লাঠি হকিস্টিক নিয়ে মানববন্ধনে অতর্কিত হামলা করে। এতে খোরশেদ আলম (৩৫) ও সাবান আলী (৫০) নামে দুইজন আহত হয়।

অপরদিকে বিক্ষুব্ধ জনতা অভিযুক্ত চেয়ারম্যান হেকমত আলীকে ধাওয়া করলে তিনি দৌড়ে একটি দোকানে গিয়ে আশ্রয় নেন। এ সময় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মাঝে আতঙ্কের সৃষ্টি হলে বাজারের সব দোকান বন্ধ করে ফেলেন।

জানতে চাইলে সাগরদিঘির অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান হেকমত সিকদার বিডি২৪লাইভকে বলেন, আওয়ামী লীগের একটি গ্রুপ জামায়াত, বিএনপির লোকদের সঙ্গে নিয়ে আমাকে হেয় করার জন্য আমার বিরুদ্ধে বারবার মানববন্ধন করে। ইতোমধ্যে তারা আমার বিরুদ্ধে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে। তারা আজকেও মানববন্ধনের আয়োজন করলে আমরা সেখানে গেলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে আমার পক্ষের সাগরদিঘি গ্রামের শফিক (২৫), জোনাব আলী (৫৫), ইমরান (১৮) নামে ৩ জন আহত হন। এ সময় ৫টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়।

এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: