প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

হারুন অর রশিদ

পঞ্চগড় প্রতিনিধি

বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষন

   
প্রকাশিত: ৯:২২ অপরাহ্ণ, ৭ আগস্ট ২০২২

পঞ্চগড়ে বিয়ের কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে গনধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার গভীর রাতে জেলার আটোয়ারী উপজেলার পূরাতন আটোয়ারী এলাকার বন্দর পাড়া গ্রামের একটি চা বাগানে এই ঘটনা ঘটে। ধর্ষনের শিকার কিশোরির বাড়ি তেঁতুলিয়া উপজেলার রনচন্ডী এলাকার পানিহারা গ্রামে। স্থানীয় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীতে তিনি পড়াশুনা করছেন। বর্তমানে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে মহিলা সার্জারি বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এই ঘটনায় রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে সাত জনের নামে এবং আরও একজনকে অজ্ঞাত করে করে আটোয়ারী থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিয়েছেন।

ধর্ষকরা হলেন আটোয়ারি উপজেলার পুরাতন আটোয়ারী মালগোবা গ্রামের মৃত আমিনারের পুত্র প্রেমিক হাসান (২৫) ফতেহপুর গ্রামের খামিরউদ্দিনের ছেলে মো. সবুজ (৩০), একই গ্রামের আব্দুর রহমানের পুত্র আমিনুল ইসলাম ওরফে ডিপজল (২৫), খাজিমউদ্দিনের পুত্র মো. নজরুল (৪০), কৈলাসের পুত্র অমর (৩০), একই গ্রামের মো. আব্দুর রহমান (৫০) পিতা অজ্ঞাত।

সরেজমিনে, পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ধর্ষনের শিকার কিশোরীর সাথে কথা বলে জানা যায়। প্রথমে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক হয় কিশোরীর। এরপর এক বছর ধরে কিশোরী তার মামার বাড়িতে যাওয়া আসার সুবাদে প্রেমিক হাসানের সাথে দেখা হয়েছিল। এক পর্যায়ে কিশোরী গভীর প্রেমের সর্ম্পকে জড়িয়ে পড়ে।

গতকাল শনিবার কিশোরী বাড়ি থেকে বের হয়ে সকাল ১০টার দিকে স্কুলে গিয়েছিল। এর মধ্যে কিশোরীকে মোবাইল ফোনে কল করে বিয়ে করবে বলে পঞ্চগড়ে ডেকে নেয় প্রেমিক। কিশোরী পঞ্চগড়ে বিকেলে আসলে কাজী অফিসে নেওয়ার কথা বলে রাত ৮ টার দিকে আটোয়ারী উপজেলার পূরাতন আটোয়ারী এলাকার বন্দরপাড়া গ্রামে সড়কের পাশে জঙ্গলে নিয়ে যায়। সেখানে প্রথমে প্রেমিক হাসান ও তার বন্ধু সবুজ কিশোরীকে ধর্ষন করেন। এ সময় তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে ধামোর ইউনিয়নের আরও কয়েকজন জঙ্গলে উপস্থিত হলে হাসান ও সবুজ ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে উপস্থিত যুবকদের কাছে সাহায্য চাইলে সাহায্য না করে কিশোরীকে পর্যায়ক্রমে আরও পাঁচজন ধর্ষন করেন।

পরে ধর্ষন শেষে কিশোরীকে অমর নামে একজন জঙ্গল থেকে বন্দরপাড়ার রাস্তার পাশে কিশোরীকে অসুস্থ অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়। এদিকে গভীর রাতে মান্নান নামে এক পথচারী কিশোরীকে অসুস্থ্য অবস্থায় দেখে তাকে উদ্ধার করে বন্দর পাড়া গ্রামের নায়েব আলীর বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে কিশোরী নায়েব আলীকে সব ঘটনা খুলে বললে কিশোরীর খালুকে সংবাদ দেয়। তার খালু ভোর রাতে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী জানান, ধর্ষকদের ধরতে অভিযান শুরু হয়েছে। অভিযান শেষে থানায় মামলা দায়ের করা হবে এবং বিস্তারিত জানানো হবে।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: