প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

বিচ্ছেদের মামলায় ভরা আদালতে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

   
প্রকাশিত: ২:২৪ অপরাহ্ণ, ১৪ আগস্ট ২০২২

ছবি: এনডিটিভি

ডিভোর্সের মামলার আদালতে হাজিরা দিতে এসেছিলেন এক দম্পতি। এ সময় আদালত চত্বরেই স্ত্রীর গলা কেটে ফেলেন স্বামী শিবকুমার। স্ত্রীকে হত্যার পর আক্রমণ করতে যান তাদের শিশু সন্তানটিকে। তবে আশেপাশের মানুষ ছুটে এসে শিশুটিতে রক্ষা করতে সক্ষম হয়। শনিবার ১৩ (আগস্ট) ভাতরের কর্ণাটকের হাসান জেলার হোলেনরসিপুর শহরের আদালত চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। খবর এনডিটিভি।

পুলিশ জানায়, শিবকুমার (৩২) ও চৈত্রা (২৮) সাত বছর আগে বিয়ে করেন। কিন্তু বনিবনা না হওয়ায় তারা আদালতে বিবাহবিচ্ছেদের আবেদন করেছিলেন। ওই দম্পতির মধ্যে সমঝোতার জন্য আদালতে ডাকা হয়েছিল। বিচারক এবং আইনজীবীর পরামর্শের পর ওই ব্যক্তি আদালতকে আশ্বাস দিয়েছিলেন যে, তিনি তার দুই সন্তানের স্বার্থে নিজেদের মতপার্থক্যকে কবর দেবেন।

সমঝোতায় রাজি হওয়ার পরই তার স্ত্রীর পেছনে টয়লেটে গিয়ে তার গলা কেটে ফেলেন ওই ব্যক্তি। স্ত্রীর সঙ্গে থাকা তাদের শিশু সন্তানটিকেও আঘাত করার চেষ্টা করেন ওই ব্যক্তি। কিন্তু আশেপাশের মানুষ এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে।

এরপর ওই ব্যক্তি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে উপস্থিত জনতা ধাওয়া করে তাকে ধরে পুলিশে হস্তান্তর করেন। তার স্ত্রীকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ইমদাদ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: