প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সোলায়মান বাবু

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি

ঘরের সিঁধ কেটে দশম শ্রেণির শিক্ষাথী ধর্ষন, থানায় মামলা

   
প্রকাশিত: ৬:৪২ অপরাহ্ণ, ১৪ আগস্ট ২০২২

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ধর্ষনের ঘটনায় শনিবার (১৩ আগষ্ট) থানায় মামলা হয়েছে। সরিষাবাড়ী উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের লোকনাথপুর গ্রামে এ ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সরিষাবাড়ী উপজেলার লোকনাথপুর গ্রামের মিজানুর রহেমানের কন্যা মেয়ে মিতু আক্তার (১৪) উপজেলার পঞ্চাশী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। একই গ্রামের সৌদী প্রবাসী আব্দুল কাদেরের পুত্র কলেজ ছাত্র কনক হাসান (২৫) স্কুলে যাতায়তের পথে প্রতিনিয়িত প্রেমের প্রস্তাব দিয়া উত্যক্ত করে আসছিল। মিতু বিষয়টি তার পিতাকে অবহিত করলে তিনি কনক হাসান ও তার পরিবার পরিজনকে বিষয়টি জানান।

এ ঘটনায় কনক হাসান ক্ষিপ্ত হয়ে মিতুর পরিবারকে হুমকি দেন বলে জানা যায়। কনক হাসান প্রতিশোধ নিতে শনিবার (১৩ অক্টোবর) গভীর রাতে মিজানুর রহমান এর কাচা বসত ঘরের সিঁধ কেটে মিতুর রুমে প্রবেশ করে। ঘুমন্ত মিতুর পড়নের কাপড় খুলে ফেলে। মিতু চিৎকার করতে গেলে তার মুখ চেপে ধরে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। পরে মিতুর আত্মচিৎকারে পাশের রুমে তার বাবা-মা এগিয়ে আসার আগেই ধর্ষক কনক হাসান পালিয়ে যায়। এ বিষয় কাউকে না বলার জন্য হুমকী প্রদান করা হয় বলে পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেন।

এ সময় কনক হাসানের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ধর্ষিতার পিতা মিজানুর রহমান বাদী হয়ে কনক হাসান কে একক আসামী করে সরিষাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেছেন। রবিবার সকালে মিতু আক্তারকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য জামালপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোহাম্মদ হুমায়ুন মিয়া নিশ্চিত করেন। এ ঘটনার পর থেকেই কনক হাসান আত্মগোপন করেছে বলে জানা গেছে।

শাকিল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: