প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এহসানুল হক মিয়া

ফরিদপুর প্রতিনিধি

ফরিদপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালিত

   
প্রকাশিত: ৪:০১ অপরাহ্ণ, ১৫ আগস্ট ২০২২

ফরিদপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। সকাল ৮ টা ফরিদপুর অম্বিকা ময়দানে পুষ্পাঞ্জলি অর্পণের মধ্যদিয়ে এ শোক দিবসটি পালন শুরু করা হয়। সোমবার (১৫ আগস্ট) পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি ও পুলিশ সুপার আলীমুজ্জামান (বিপিএম) এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন শাহাদত হোসেন। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ফরিদপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি ও পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত ডিআইজি) আলীমুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) জামাল পাশা, পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আব্দুল কাইয়ূম, শিক্ষক মণ্ডলী ও শিক্ষার্থী বৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার বলেন, ১৯৭১ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তাঁর পরিবারসহ নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছিলো। তাঁর ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ভাষণ সাধারণ মানুষের মনে স্বাধীনতার আকাঙ্ক্ষা জাগিয়েছিলেন। তাঁর অক্লান্ত প্রচেষ্টায় আমরা পেয়েছি একটি স্বাধীন বাংলাদেশ। কিন্তু ঐ সময়ে দেশের কিছু মোড়ল এই স্বাধীনতা চাননি। আমরা একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র পেলাম কিন্তু এই মোড়লরা তখনও থেমে থাকেনি। তারা দেশি ও বিদেশি ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে হত্যা করেছে।

বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধু একই সূতায় গাথা, এটা অস্বীকার করার সুযোগ নেই। তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, আপনারা শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরবেন। ১৯৬৬ সালের ৬ দফা দাবী, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতার ইতিহাস সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারনা দেবেন। শিক্ষার্থীদের পাঠ্য বইয়ের বাইরে গণিত ক্লাব, বিজ্ঞান ক্লাব, ডিবেট ক্লাবসহ তাদের এক্সট্রা কারিকুলামের মাধ্যমে মেধার বিকাশ ঘটাবেন। তাদের মধ্যে নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্যতা গড়ে তুলতে হবে যেন তারা দেশের প্রয়োজনে যে কোন উপরিস্থিততে নিজেকে নিয়োজিত করতে পারে অর্থাৎ পরিপূর্ণ শিক্ষা দিতে হবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলার একজন অবিসংবাদিত নেতা। তিনি ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচন এবং ১৯৭১ সালে সঠিক নেতৃত্বের মাধ্যমে আমাদের উপহার দিয়েছেন একটি স্বাধীন বাংলাদেশ। তাঁর ৭ মার্চের ভাষণে স্বাধীনতার বীজ উপ্ত হয়। তিনি ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ গভীর রাতে গ্রেফতার হওয়ার পূর্বে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন।

পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আব্দুল কাইয়ূম শিক্ষার্থীদের মাঝে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। শিক্ষার্থীদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করে দেশের সেবায় এগিয়ে যেতে বলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপর বিভিন্ন প্রতিযোগিতা হয়েছিলো এবং সেখানে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়ে সভাপতি অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: