প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

আব্দুল্লাহ আল ইমরান

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটে সহকারী শিক্ষকের হাতে প্রধান শিক্ষক লাঞ্চিত!

   
প্রকাশিত: ৯:৪০ অপরাহ্ণ, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

বাগেরহাটে এবার সহকারী প্রধান শিক্ষকের হাতে প্রধান শিক্ষক লাঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রধান শিক্ষকের দাবী তাকে প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক মারধর করে মোবাইল ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। পাশাপাশি একটি কক্ষে আটকিয়ে রাখে। পরে পুলিশকে ফোন দিয়ে বিষয়টি জানালে দ্রুত পুলিশ এসে উদ্ধার করে। ঘটনাটি ঘটেছে বাগেরহাট সদর উপজেলার কেজেএসপি, ইউঃ স্কুল এ্যান্ড কলেজে। হামলার শিকার প্রধান শিক্ষক বাগেরহাট ২৫০ শয্যা রাজিয়া নাসের জেলা হাসপাতালে ভতি রয়েছে।

বাগেরহাট প্রধান শিক্ষক আনন্দ কুমার পাল জানান, প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার সকালে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হই। আমাদের প্রতিষ্ঠানে ঢাকা থেকে ভিজিটে আসার কথা এর জন্য আমরা সম্মিলিত ভাবে কাজ করছি। এসময় সহকারী প্রধান শিক্ষক নলিনী রঞ্জন পাল ও সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম আমার ওপর চড়াও হয় বাকবিতান্ডার এক পর্যায়ে আমাকে বেধড়ক মারপিঠ করে ও আমার কাছে থাকা আনুমানিক ২০ হাজার টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। এবং আমাকে আমার কক্ষে রেখে বাইরে থেকে আটকিয়ে রাখতে পরে পুলিশ কে ফোনে দিলে বাগেরহাট সদর থানা পুলিশ আমাকে উদ্ধার করে। পরে সদর হাসপাতালে ভর্তি হই। আমি ইতিমধ্যে আমার উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি জানিয়েছি।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক নলিনী রঞ্জন পাল বলেন, এধরনের কোন ঘটনা আমাদের বিদ্যালয়ে ঘটেনি। তবে পুলিশ আসছিল পুলিশের মুখ থেকে শুনলাম আমরা নাকি তাকে মেরেছি। বরং পুলিশের সামনে প্রধান শিক্ষক আমার মুখে থুথু মেরেছে। এতে উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা তাকে ধিক্কার জানিয়েছে। বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সদস্য অধ্যাপক আসাদুজ্জামান বলেন, আমি এসময় বিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলাম মারামারির কোন ঘটনা প্রধান শিক্ষক আমাকে জানায়নি। সহকারী প্রধান শিক্ষক নলিনী রঞ্জন পাল ও সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলাম তার মোবাইল ভেঙ্গে ফেলেছে বলে আমার কাছে অভিযোগ করে। আমি বলেছি বিদ্যালয়ের ভিজিটের কাজ শেষ হলে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে।

বিদ্যিালয়ের সহকারী শিক্ষক স্নিগ্ধা রানী পাল জানান, আমরা শিক্ষকরা ওনার কাছে নিরাপত্তা বোধ করিনা কারন উনি যে কোন সময় আমাদের সাথে খারাপ আচরন করতে পারে। বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনির একজন শিক্ষার্থী জানান, প্রধান শিক্ষক নিয়মিত স্কুলে আসে না সকাল ১১ টায় আসে আর ১২ টায় চলে যায় কোন ক্লাস ও তিনি নেন না। আমাদের সাথে খুব খারাপ আচরন করে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: