প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সকালের খাবার খেয়ে বিচারক দম্পতি হাসপাতালে, ভাতিজি পলাতক

   
প্রকাশিত: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

ফাইল ছবি

সকালের খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন রাজশাহীর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল অধিকারী ও তার স্ত্রী অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ জয়ন্তি রাণী দাস। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সোয়া ৯টার দিকে তাদের রামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় পরে বিচারক জুয়েল অধিকারীকে আইসিইউতে নেওয়া হয়েছে। তবে অবস্থার উন্নতি হয়েছে তার স্ত্রী বিচারক জয়ন্তি রাণী দাসের।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সকাল সোয়া ৯টার দিকে বিচারক দম্পতি রামেক হাসপাতালে আসেন। বিচারক জয়ন্তি রাণী দাসের অবস্থা অনেকটাই ভালো ছিল। তিনি হাঁটাচলা করতে পারছিলেন। তাকে হাসপাতালের ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। তিনি এখন শঙ্কা মুক্ত।

তবে অবস্থার উন্নতি হয়নি তার স্বামী বিচারক জুয়েল অধিকারীর। প্রথমে তাকে হাসপাতালের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছিল। চিকিৎসকদের পরামর্শে সকাল ১০টার দিকে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। এখনো তিনি শঙ্কা মুক্ত নন বলে জানান হাসপাতালের পরিচালক।

এ বিষয়ে রাজশাহী মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) রফিকুল আলম বলেন, সকালের খাবার খেয়ে তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর দ্রুত তাদের রামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। বিচারক দম্পতি খাদ্যে বিষক্রিয়া নাকি বিষ প্রয়োগের শিকার হয়েছেন তা পরীক্ষা ছাড়া নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে পুলিশও কাজ করছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, এই বিচারক দম্পতির বাসায় থাকতেন জয়ন্তি রাণী দাসের আপন ভাতিজি সুপ্রীতি দাস মৌ (১৪)। স্বজনদের অভিযোগ- এই কিশোরী খাবারের সঙ্গে বিষাক্ত কিছু মিশিয়ে দিয়েছে। ঘটনার পর থেকে ওই কিশোরী পলাতক। এই বিষয়টিও পুলিশ খতিয়ে দেখছে বলে জানান রফিকুল আলম।

ইমদাদ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: