প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সাহিদুজ্জামান সাহিদ

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

বটি দিয়ে ক্লিনিকের রিসেপশনিস্টকে কোপালেন রোগীর স্বামী

   
প্রকাশিত: ৫:৪৫ অপরাহ্ণ, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

জামাই-শ্বাশুড়ির বাকবিতন্ডার সূত্রপাতে ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর আহতের শিকার মানিকগঞ্জের শাপলা ক্লিনিকের রিসিপসনিষ্ট সাইদুর রহমান (৩০)। গুরুতর আহত সাইদরকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার বাসট্যান্ড এলাকার শাপলা ক্লিনিকে এই ঘটনা ঘটে।

যানাগেছে, গেল দুদিন আগে বাচ্চা প্রসবের জন্য গর্ভবতী স্ত্রীকে ক্লিনেকে ভর্তি করেন স্বামী উল্লাস (২৬)। আজ সকালে শ্বশুড় বাড়ীর লোকজন মেয়েকে ক্লিনিকে দেখতে আসলে সেখানে স্বামী উল্লাসের সাথে বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। উচ্চ শব্দ শুনে ক্লিনিকের লোকজন এগিয়ে আসলে স্টাফদের সাথেও অশালীন বাক্য বিনিময় হয়। বড় ভাই উৎসব পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্ট করলে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায় উল্লাস। এর ঘন্টাখানেক পর রিসিফসনিষ্ট সাইদুর রহমানকে (৩০) ধারালো বটি দিয়ে অতর্কিত হামলা করে। অর্ধমিনিটের এই হামলায় মাথা এবং হাতসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ জখম হয়। লোকজনের উপস্থিতি পেয়ে সটকে পরেন উল্লাস।

জানাগেছে, উল্লাস একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে। তার বাড়ি পৌর এলাকার বান্দুটিয়া গ্রামে। প্রায় এক বছর আগে পাশের এলাকার হাশেম আলীর মেয়ে পুষ্পার সাথে পরিবারের দ্বিমতে বিয়ে করেন উল্লাস। এর পর থেকেই দুই পরিবারের মাঝে সম্পর্কের অবনতির আর রেশ কাটেনি।

ক্লিনিক কর্তপক্ষ পুলিশে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ইল্লাসের বড় ভাই উৎসব এবং বাবা ফালাককে আটক করে। এবিষয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার বলেন, ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদরে জন্য দুজনকে আটক করা হয়েছে। কেউ মামলার জন্য আসেনি আসলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: