প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোবাইলের ছবি ডিলিট করে স্ত্রী, রেগে প্রাণ দিলেন হীরা

   
প্রকাশিত: ১২:০০ অপরাহ্ণ, ২ অক্টোবর ২০২২

রাজধানীর উত্তর বাড্ডার একটি বাসা থেকে এক কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত যুবকের নাম মো. হাসেম আলী হিরা। গতকাল শনিবার (১ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উত্তর বাড্ডা পূর্বাচলের তিনতলা বাসার নিচতলায় জানালার গ্রিলের সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেন তিনি।পরে বাসার লোকজন তাকে উদ্ধার করে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত যুবকের পরিবার সূত্রে জানা যায়, তাদের বাড়ি খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার উত্তর রশিদনগর গ্রামে। হীরার বাবার নাম জামাল হোসেন। বর্তমানে উত্তর বাড্ডা পূর্বাচল এলাকার একটি বাসার নিচতলায় ভাড়া থাকেন। নিহত যুবক একটি কুরিয়ার সার্ভিসে চাকরি করতেন। পাশাপাশি সাতারকুল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রথম বর্ষে পড়াশোনা করতেন। তিন মাস আগে তাহমিনা সুলতানা তামান্না নামে একটি মেয়েকে বিয়ে করেন। তামান্নাও একই কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

নিহত হীরার ছোট ভাই মাসুদ জানান, বিকেলে বড় ভাই হীরা ও তার স্ত্রী বাসার ছাদে ঘুরতে যান। সেখানে দুজন মোবাইলে ছবি ওঠান। ছবি তুলছিলেন হীরা। এ সময় একটি ছবি খারাপ হলে তার স্ত্রী তামান্না রেগে সব ছবি ডিলিট করে দৌড়ে বাসায় চলে আসেন। এতে ক্ষোভে হীরা বাসায় এসে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। অনেকক্ষণ ধরে কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে ঘরের দরজা ভেঙে দেখেন হীরা জানালার গ্রিলের সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস ঝুলে আছেন। পরে ঝুলন্ত অবন্থা থেকে তাকে নামিয়ে দ্রুত ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের স্ত্রী তাহামিনা সুলতানা তামান্না জানান, মাত্র তিন মাস হয়, আমাদের বিয়ে হয়েছে। হিরা, মাগরিবের নামাজ শেষ করে নিজের রুমে গিয়ে জানালার গ্রিলের সঙ্গে ফাঁস দিয়েছে। পরে উদ্ধার করে তাকে ঢামেকে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি বাড্ডা থানাকে অবগত করা হয়েছে।

রেজানুল/সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: