প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

পরশুরামে সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় পিতাকে হত্যা করল সন্তান

   
প্রকাশিত: ১১:৪৮ অপরাহ্ণ, ১৪ অক্টোবর ২০২২

কামরুল হাসান নিরব, ফেনী থেকে: ফেনীর পরশুরামে পূর্ব অলকা সম্পত্তির ভাগ নিয়ে বিরোধের জেরে আবদুল মোমিন (৬০) নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার একমাত্র ছেলে রাজীব। বৃহস্পতিবার ১৩ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, মোমিনের তিন মেয়ে ও এক ছেলে। তিন মেয়ে স্বামীর বাড়িতে থাকেন। কিন্তু একমাত্র ছেলে রাজীবের সঙ্গে জমির ভাগ নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে মোমিনের বিরোধ চলে আসছিল।

বিরোধের জের ধরে দলিল লেখক রাজীব তার স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কয়েক মাস আগে পরশুরাম শহরে বাসা ভাড়া নিয়ে আলাদা ভাবে বসবাস করতে থাকেন। স্ত্রীকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে থাকতেন মোমিন। সম্প্রতি তিনি কিছু জমি বিক্রি করেন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় স্ত্রীর বড় ভাই সুমনকে নিয়ে বাড়িতে যান রাজীব। এ সময় রাজীব তার বাবা মোমিনকে সব সম্পত্তি তার নামে লিখে দিতে চাপ সৃষ্টি করেন। এতে ছেলের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে সব সম্পত্তি বিক্রি করে দেয়ার কথা বলেন বাবা। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে আবদুল মোমিনকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটান রাজীব ও সুমন। এক পর্যায়ে মোমিন অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে তারা নিয়ে যান পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

সেখানকার দায়িত্বরত চিকিৎসক মোমিনকে ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর দায়িত্বরত চিকিৎসক আবদুল মোমিনকে মৃত ঘোষণা করেন। বিপদ বুঝে বিষয়টিকে ডাকাতির ঘটনা বলে প্রচার করতে থাকেন রাজীব।

পরশুরাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান, রাজীব বিষয়টি সম্পূর্ণ গোপন রেখেছিলেন। রাত ১২টার দিকে ফেনী জেলা সদর হাসপাতাল থেকে ফোন করে জানানোর পর তিনি অবগত হন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে রহস্য উদ্‌ঘাটন করেন।
এবং অভিযুক্ত রাজীব ও সুমনকে আটক করেছে পুলিশ।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: