প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

ডি এইচ মান্না

সিলেট প্রতিনিধি

সিলেট বিএনপির সমাবেশের দুই দিন আগেই নেতাকর্মীদের ভিড়

   
প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, ১৭ নভেম্বর ২০২২

সিলেটে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ আগামী শনিবার (১৯ নবেম্বর) অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু আজ বৃহস্পতিবার দিন থেকেই বিএনপি নেতাকর্মীদের সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে অবস্থান করছেন। মূল মঞ্চের ডানপাশেই পর্দা দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে ছোট ছোট ঘর। ঘরের উপরে ব্যানারে লেখা রয়েছে ‘ক্যাম্প’। এসব ক্যাম্পের ভেতরে চরছে রান্নার আয়োজন।

বিএনপি নেতারা জানান, পরিবহন ধর্মঘটসহ নানা বাধার কারণে আগেভাগে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নেতাকর্মীরা সিলেটে আসতে শুরু করেছেন। তাদের জন্য এসব ক্যাম্প নির্মাণ করা হয়েছে। বিভিন্ন অঞ্চল ও অঙ্গসংগঠনগুলোর জন্য আলাদা আলাদা ক্যাম্প করা হয়েছে। এসব ক্যাম্পেই আগে আসা নেতাকর্মীরা অবস্থান নেবেন। তাদের খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিকেলে আলীয়া মাদ্রাসায় গিয়ে দেখা যায়, হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির জন্য নির্ধারিত ক্যাম্পে বসে সবজি কাটছেন এক নারী। রাতে সেখানে গিয়ে দেখা যায়, বড় হাড়িতে চলছে রান্নার আয়োজন। হবিগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা নেতাকর্মীরা মাঠের চারদিকে ঘুরাঘুরি করছেন।

হবিগঞ্জের ক্যাম্পেই বসা ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা বি্এনপির যুগ্ন আহ্বায়ক ও সাবেক পৌর মেয়র জিকে গৌছ। তিনি বলেন, আমাদের অনেক নেতাকর্মী আজকেই সিলেটে চলে এসেছেন। এখানে তাদের বিশ্রাম ও খাওয়ার ব্যবস্থা হচ্ছে।

মাঠের ভেতরে নির্মান করা হয়েছে ছোট ছোট কয়েকটি স্টল। একটি স্টলে স্তুপাকারে রাখা হয়েছে পানির বোতল। মাঠে আসা যে কেউ বিনামূল্যে সেখান থেকে পানি নিয়ে যেতে পারছেন।

এই স্টেলের উপরের দিকে টানানো ব্যানার দেখে জানা গেলো, নেতাকর্মীদের ফ্রি পানি বিতরণের এই ব্যবস্থা করেছেন মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি রেজিনা নাসির। তিনি সাবেক অর্থমন্ত্রী প্রয়াত এম সাইফুর রহমানের পুত্রবধূ। তার স্বামী নাসের রহমান মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি।

বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই সমাবেশ স্থলে নেতাকর্মীদের ভিড় লেগে যায় সময় সময় তা বাড়তে থাকে। বিকেলে বিএনপির স্থানীয় কমিটির সদস্য ড. মঈন খানসগহ কেন্দ্রীয় নেতারা মাঠ পরিদর্শন করেন। এসময় সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতারাও উপস্থিত ছিলেন। চলছে মাঠ প্রস্তুত করার শেষ মূহূর্তের কাজ।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী জানান, ‘সিলেটে গণসমাবেশের জন্য ৭০ ফুট লম্বা ও ৩০ ফুট প্রশস্ত মঞ্চ নির্মাণ করা হচ্ছে। মঞ্চ নির্মাণকাজ প্রায় শেষ।

তিনি বলেন, সমাবেশকে পন্ড করতে সরকার নানাভাবে বাধা দিচ্ছে। পরিবহন ধর্মঘটও ডাকা হয়েছে। তাই আগেভাগেই অনেক নেতাকর্মী আসা শুরু করেছেন। তাদের বিশ্রাম ও খাওয়ার জন্য মাঠের মধ্যে ক্যাম্প নির্মাণ করা হয়েছে। একেকটি ক্যাম্পে ৪৫০ থেকে ৫০০ জন থাকতে পারবেন। তবে শনিবার সমাবেশে আসা মানুষের জায়গা করে দিতে এসব ক্যাম্প ভেঙে ফেলা হবে।

চাল, ডাল, জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ, সারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে এবং বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানে বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে দেশের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে দেশের সকল বিভাগীয় শহরগুলোতে গণসমাবেশ করছে বিএনপি। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার সিলেটে সমাবেশ করবে দলটি। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সালাউদ্দিন/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: