প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

নারীর নিথর দেহ দেখিয়ে যুবক বললেন, বিশ্বাসঘাতকতা বরদাস্ত নয়

   
প্রকাশিত: ৫:৫৫ অপরাহ্ণ, ১৮ নভেম্বর ২০২২

ভারত যখন সদ্য ঘটা শ্রদ্ধাকাণ্ডে সবাই স্তব্দ, তখনই এক নারীর গলাকাটা মরদেহ দেখিয়ে পুলিশকে চ্যালেঞ্জ করছেন এক যুবক। সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ করে তিনি বলছেন, ‘বেওয়াফাই নেহি করনে কা…. (বিশ্বাসঘাতকতা বরদাস্ত নয়)’ বাবু, হেভেন মে ফির মিলেঙ্গে…(বাবু, স্বর্গে আমাদের আবার দেখা হবে)।ঐ ভিডিওতে কথা বলতেই বলতেই পাশে কম্বলে ঢাকা একটি নারীর গলাকাটা মরদেহটি দেখান ঐ যু্বক। শ্রদ্ধা ওয়ালকারের হত্যাকাণ্ডের আরো একটি গা শিউরে ওঠা ঘটনা প্রকাশ্যে এলো।

সম্প্রতি ভারতের মধ্যপ্রদেশের জবলপুরে এ ঘটনা ঘটেছে। ভিডিওতে কথা বলা যুবকের নাম অভিজিৎ পাতিদার। তিনি একজন ব্যবসায়ী। ভিডিওতে অভিজিৎ পুলিশকেও চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বলেন, ক্ষমতা থাকলে আমাকে গ্রেফতার করুন! পুলিশ জানায় মৃতার নাম শিল্পা জারিয়া (২৫)। জবলপুরের মেখলা রিসোর্ট থেকে উদ্ধার হয়েছে শিল্পার গলাকাটা দেহ। পরপর বেশ কয়েকটি ভিডিও সমাজমাধ্যমে পোস্ট করেছেন অভিযুক্ত। তার মধ্যে একটিতে তিনি বলেন, বিশ্বাসঘাতকতা বরদাস্ত নয়। তারপরই কম্বলের নিচ থেকে শিল্পার গলাকাটা দেহটি দেখান। তারপরই আবার একটি ভিডিওয় তিনি বলেন, বাবু, আমাদের আবার দেখা হবে স্বর্গে।

এছাড়া ভারাল হওয়া  আরো একটি ভিডিওতে নিজের নাম প্রকাশ করে অভিজিৎ দাবি করেছেন, তিনি পাটনার একজন ব্যবসায়ী। তার ব্যবসার সঙ্গী জিতেন্দ্র কুমারের সঙ্গে শিল্পার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। অভিজিৎ দাবি, সেই সম্পর্ককে কাজে লাগিয়ে জিতেন্দ্রর কাছ থেকে ১২ লাখ টাকা হাতিয়ে জবলপুরে পালিয়ে এসেছিলেন শিল্পা। জিতেন্দ্রর নির্দেশেই তাই জবলপুরে এসে শিল্পাকে খুন করেন অভিজিৎ। জিতেন্দ্র ও তার ঘনিষ্ঠ সুমিত প্যাটেলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এই ঘটনায় জবলপুর পুলিশের এসএসপি প্রিয়াঙ্কা শুক্ল জানান, এক মাস ধরে জিতেন্দ্রর বাড়িতে থাকতেন অভিজিৎ। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গিয়েছে, গত ৬ নভেম্বর মেখলা রিসোর্টে একটি ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন অভিজিৎ। রাতে একাই ছিলেন। পরদিন বিকেলে এক নারী আসেন সেখানে। তারা দুজনে খাবারের অর্ডার দেন। এক ঘণ্টা পর হোটেলের ঘরের দরজা বন্ধ করে অভিজিৎ বেরিয়ে যান। ৮ নভেম্বর হোটেলের দরজা ভেঙে শিল্পার গলাকাটা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এসএসপি জানান, অভিজিতের খোঁজে চারটি বিশেষ দল গঠন করে মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, গুজরাটে পাঠানো হয়েছে।

রেজানুল/সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: