প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এবার জার্মানির সাড়ে ৭ কিমি দীর্ঘ পতাকা বানালেন আমজাদ

   
প্রকাশিত: ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ, ১৯ নভেম্বর ২০২২

আর কয়েকদিন পরেই শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসর বিশ্বকাপ। এ উপলক্ষে ফুটবল ভক্তরা মেতে উঠেছেন উৎসবে। অনেকে নিজের পছন্দের দলের প্রতি সমর্থন জানাতে করছেন নানা আয়োজন। অনেক ফুলবল প্রেমী নানাভাবে তাদের ভালোবাসা প্রকাশ করছেন। এমনই একজন ফুটবল প্রেমী আমজাদ হোসেন।

জীবনযদ্ধে টিকে যাওয়া আমজাদের বয়স ইতিমধ্যে ৭০- এ ঠেকেছে। বয়সের ভার জাঁকিয়ে বসলেও ফুটবল আর জার্মান দলের প্রতি ভালোবাসা কমেনি এক বিন্দু। প্রায় দেড় যুগের ও বেশি সময় ধরে বিশ্বকাপের সময় জার্মানির বড় পতাকা বানিয়ে আসছেন মাগুরা সদরের ঘোড়ামারা গ্রামের এই কৃষক। আর এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। আজ শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) মাগুরা সদরের নিশ্চিতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে জার্মানির সাড়ে সাত কিলোমিটার পতাকা প্রদর্শন করে মাগুরাবাসীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন তিনি। এই পতাকা প্রদর্শন অনুষ্ঠানে যোগ দেন চট্টগ্রামের জার্মানি ফুটবল ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। এ সময় গ্রামের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষও উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এর আগে ২০০৬ সালের শুরুর দিকে তিনি প্রিয় ফুটবল দল জার্মানির পতাকা তৈরির উদ্যোগ নেন। এ সময় পরিবারের কারও সমর্থন ছিল না। তারপর নিজের জমি বিক্রি করে বানান জার্মানির পতাকা। তবে এবার তার সন্তানরাই পতাকা তৈরির খরচ দিয়েছেন। নতুন করে দুই কিলোমিটার বাড়িয়ে আগের পতাকার সঙ্গে যুক্ত করে মূল পতাকার দৈর্ঘ্য হয়েছে সাড়ে সাত কিলোমিটার। গত দুই সপ্তাহ ধরে চারজন দর্জি মিলে পতাকা সেলাই করেছেন। এবার নতুন দুই কিলোমিটার পতাকা তৈরি করতে আমজাদ হোসেনের খরচ হয়েছে ৯০ হাজার টাকা। তার মধ্যে কাপড়ে খরচ হয়েছে প্রায় ৭০ হাজার।

জার্মানির প্রতি তার এত ভালোবাসার কারণ সম্পর্কে আমজাদ  জানান, ‘২০০৫ সালের দিকে আমি কঠিন পীড়ায় আক্রান্ত হই। বিভিন্ন ওষুধ খেয়েও কোনো কাজ হচ্ছিল না। তখন মাগুরা শহরের একজন চিকিৎসকের পরামর্শে জার্মানির তৈরি হোমিও ওষুধ সেবন করে আরোগ্য লাভ করি। এরপর থেকেই আমি জার্মান দলের ভক্ত।’ তিনি বলেন, জার্মান দলের প্রতি রয়েছে আমার অকৃত্রিম ভালোবাসা। বিশেষ করে বিশ্বকাপ ফুটবল এলেই জার্মানির দলের প্রতি ভালোবাসার টানে কিছু একটা করতে ভালো লাগে। তাই জার্মানির পতাকা তৈরি করেছি।

মাগুরার ক্রীড়া সংগঠক বারিক আনজাম বার্কি বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, আমজাদ ভাই জার্মানি দলের দারুণ ভক্ত। দলের প্রতি ভালোবাসার টানেই তিনি দীর্ঘ সাড়ে সাত কিলোমিটার পতাকা তৈরি করেছেন। মাগুরার চাউলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাফিজার রহমান বলেন, ‘আমজাদ আমার এলাকার ছেলে। সে জার্মান দলের পাগলভক্ত। নিজের জমি বিক্রি করে সে জার্মান দলের পতাকা তৈরি করেছে। যা অনেকেই পক্ষে করা সম্ভব নয়।’

রেজানুল/সা.এ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: