প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

মেহেদি হাসান হাসিব

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিখোঁজ প্রার্থী লোকেট হওয়া মাত্রই মিডিয়ার সামনে আনা হবে’

   
প্রকাশিত: ৩:১৪ অপরাহ্ণ, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩

ছবি - সংগৃহীত

নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান বলেছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিখোঁজ প্রার্থী আত্মগোপনে আছেন। উদ্ধারে যাদের দায়িত্ব তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তারা তাকে লোকেট করার মাত্রই মিডিয়ার সামনে নিয়ে আসবে। মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) নির্বাচন ভবনের নিজ কার্যালয়ে ইসি আনিছুর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, যেহেতু গণমাধ্যমে আসছে এরপর আমরা মাঠ প্রশাসনে কথা বলেছি। এরপর তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলেছি ডিসি, এসপি ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে। কী ঘটেছে সে রিপোর্ট চেয়েছি। তারা বলেছে, ওই ব্যক্তি কোথায় আছে সেটা একবার চিহ্নিত করা গিয়েছিল। পরে আর যায়নি ফোনটা বন্ধ ছিল বলে। এরপর সকল এজেন্সি প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। তিনি কোথায় আছেন- আমরা একটা ভিডিও দেখেছি তাতে মনে হয়, যে এটা তার মানে এরকম একটা পরিকল্পনা আগেই করা ছিল। এবং সেটাই ঘটেছে, এটা অনুমান করতে কোনো ইয়ে নাই। পুরোটা জানা যাবে যদি খুঁজে পাই।

তিনি আরো বলেন, আমাদের নির্দেশনা দেওয়া আছে যে তাকে খুঁজে বের করে গণমাধ্যমের সামনে বক্তব্য রাখতে হবে। আমাদের কাছে তথ্য আছে যে সরকারি কোনো বাহিনী এই কাজটি করেনি। তাহলে কী আত্মগোপনে আছে এমন প্রশ্নের জবাবে এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, তাহলেই তো ধরে নেওয়া যায় এমনই। বিভিন্ন গণমাধ্যমেও এই রিপোর্টই এসেছে। আমরাও এরকমই জানি। এখন একটা লোক যদি লুকিয়ে থাকে ইচ্ছাকৃতভাবে তাহলে তো তাকে খুঁজে বের করা কঠিন।

আমাদের কাছে যে তথ্য উপাত্ত আছে তাতে ধারণা জাগে, এছাড়া যে রেকর্ড আছে তাতে তিনি স্ত্রীকে বলছেন যে কী কী আনতে হবে। সিসি ক্যামেরা বন্ধ করে দিতে হবে এবং ১০ মিনিট পর উনি বের হয়ে চালু করতে, তার মানে কী? মানে হচ্ছে যে তারা একটা পরিকল্পনা করেছে, এটাই আমরা অনুমান করছি। হয়তো তার অন্য কোনো উদ্দেশ্যে থাকতে পারে বা তার নিজের গুরুত্ব বাড়ানোর জন্য।

এই নির্বাচন কমিশনার আরো বলেন, নিখোঁজ হলে থানায় বা রিটার্নিং অফিসারকে কেন জানাননি যে নিখোঁজ। একটা জিডিও তো করতে হয় থানায়। আপনি তো করেননি, কেন করেননি এমন প্রশ্ন তার স্ত্রীকে করা হলে তিনি বলেছেন আমি সময় পাইনি। আনিছুর রহমান বলেন, আমরা নির্দেশনা দিয়েছি তাকে খুঁজে বের করার জন্য। তাদের রিপোর্টে আছে নিখোঁজ। এখন নিখোঁজ বলতে তো আত্মগোপনও হতে পারে। এছাড়া তাদের যে রেকর্ড ভাইরাল হয়েছে, তাতে তো মনে হয় আত্মগোপনেই আছে।

আমাদের কাছে একটা জিনিস পাঠিয়েছে রিটার্নিং অফিসার। সেখানে স্ত্রীকে জিজ্ঞাবাদে সুস্পষ্ট কিছু আসে নাই। এ নিয়ে কেউ যদি মনে করে এটা বিতর্ক তাহলে কিছু করার নেই। আমরা আমাদের চেষ্টা করে যাচ্ছি। আর এটা উদ্ধারে যাদের দায়িত্ব তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তারা তাকে লোকেট করার মাত্রই মিডিয়ার সামনে নিয়ে আসবে।

১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় ছয় আসনের উপ-নির্বাচন নিয়ে তিনি আরো বলেন, আমরা মনে করছি সুন্দর, সুষ্ঠু পরিবেশ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য যা যা ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন আমরা সকল ব্যবস্থা নিয়েছি।

আশরাফুল/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: